স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে আ.লীগকে আমন্ত্রণ জানাবে বিএনপি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, শনিবার
প্রকাশিত: ০৫:০৭

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে আ.লীগকে আমন্ত্রণ জানাবে বিএনপি

দলের পক্ষ থেকে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্‌যাপনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমন্ত্রণ জানাবে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল- বিএনপি।

শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর গুলশানের হোটেলে লেকসোরে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে এক মতবিনিময় সভায় এ তথ্য জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। 

সুবর্ণজয়ন্তী উদ্‌যাপনে রাষ্ট্রীয় কর্মসূচিতে বিএনপি অংশ নেবে কি-না এবং বিএনপির কর্মসূচিতে প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানানো হবে কি-না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “হ্যাঁ অবশ্যই, আজই প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানানো হবে।”

এ সময় মির্জা ফখরুল বলেন, “কোনো একক ব্যক্তি, গোষ্ঠী কিংবা পরিবারের জন্য দেশের মানুষ মুক্তিযুদ্ধ করেনি। দেশের আপামর জনগণের মুক্তির জন্য মুক্তিযুদ্ধ হয়েছিল। মুক্তিযুদ্ধে যার যে অবদান তা গুরুত্ব দিয়ে জাতির সামনে তুলে ধরা হবে।”

তিনি আরও জানান, ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ মুক্তিযুদ্ধে অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে। পাশাপাশি ২ মার্চ স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন দিবস, ৩ মার্চ স্বাধীনতার ইশতেহার ঘোষণাসহ মুক্তিযুদ্ধে সময় যে বা যারা ভূমিকা রেখেছিলেন তাদের সবাইকে স্মরণ করবে বিএনপি।

মির্জা ফখরুল বলেন, “জিয়াউর রহমান যা অর্জন করেছেন তা যুদ্ধ করে অর্জন করেছেন। এটি কারো দয়ার দান নয়। জিয়ার অবদানকে খাটো করার অর্থ হলো মুক্তিযুদ্ধকে অস্বীকার করা। ঠিক একইভাবে যে ভাষণ শেখ মুজিবুর রহমানের অবশ্যই ইতিহাস। অবশ্যই তার সন্মান, তার মর্যাদা তাকে দিতে হবে। তার অর্থ এই নয় যে, ৭ মার্চ আপনি যখন পালন করবেন তখন এই কথা বলবেন ৭ই মার্চের ডাকে হয়ে গিয়েছিলো কিনা সেটা তো আলোচনার মধ্যে আসবে, ইতিহাস থেকে আসবে, ইতিহাসের সমস্ত বই থেকে আসবে।

জাতিকে বিভক্ত করার জন্য আওয়ামী লীগকে অভিযুক্ত করে তিনি বলেন, ‘‘ দুর্ভাগ্য আমাদের ৫০ বছর পরে জাতি হিসেবে আমরা বিভক্ত হয়ে পড়েছি। সেটার জন্য কৃতিত্ব আওয়ামী লীগেরই। জাতিকে প্রথম থেকে তারা স্বাধীনতার পক্ষে, স্বাধীনতার বিপক্ষে, চেতনার পক্ষে, চেতনার বিপক্ষে নিয়ে গেছে।” 

ডিজিটাল আইনের কঠোর সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘‘ আজকে যে ডিজিটাল আইন তৈরি করা হয়েছে আপনারা সাংবাদিকরা তার সবচেয়ে বেশি ভুক্তভোগী। আপনাদের প্রায় ৪শ জন বিভিন্নভাবে ভুক্তভোগী, কত জনকে জেল খাটতে হয়েছে। আপনাদের ফটোগ্রাফার কাজল, তার আগে বিখ্যাত আন্তর্জাতিক আলোকচিত্রী শহিদুল আলম এরা সবাই। সাগর-রুনিকে হত্যা করা হয়েছে। এদের অপরাধ শুধু লেখার জন্য। আমার প্রশ্ন এই জায়গায় যে, এর জন্য তো আমরা স্বাধীনতা যুদ্ধ করেনি, এজন্য আমরা স্বাধীনতা চাইনি।”

তিনি বলেন, ‘‘আমরা চেয়েছিলাম গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র নির্মাণ করবো। আমরা স্বাধীনতা সূবর্ণ জয়ন্তীর কর্মসূচি পালন করার ওই একটাই উদ্দেশ্য যে, গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ আমরা চেয়েছিলাম। আমরা কোনো একজন ব্যক্তি, কোনো একটা পরিবার, কোনো একটা দলের একান্ত ব্যক্তিগত পারিবারিক সম্পত্তি করার জন্য আমরা এদেশ স্বাধীন করি নাই।”

অনুষ্ঠানে জিয়াউর রহমানের ‘বীর উত্তম’ খেতাব বাতিলে জিয়াউর রহমান এবং বিএনপির কিচ্ছুই যায় আসে না বলে মন্তব্য করে্ছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি দৃঢ়ার সাথে বলেন, ‘‘ জিয়াউর রহমানকে ইতিহাস ধারণ করেছে। কে কার খেতাব নিলো, না নিলো তাতে জিয়াউর রহমানের কিচ্ছু যায় আসে না আর এদেশের স্বাধীনতাকামী মানুষেরও কিছু যায় আসে না।বিএনপিরও কিচ্ছু যায় আসে না।”

‘‘ শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান খেতাব কারো দয়ায় নয় বা কোনো সরকারের বা কোনো ব্যক্তির আনুকুল্যে নয়। তিনি এটা অর্জন করেছিলেন তার ঘোষণার মধ্য দিয়ে একটা জাতিকে তার স্বাধীনতা যুদ্ধে অনুপ্রাণিত করে তিনি ঘোষণার মধ্য দিয়ে করেছিলেন। এটা তিনি তার কাজের মধ্য দিয়ে, অনুপ্রাণিত করার মধ্য দিয়ে তা তিনি অর্জন করেছিলেন। এই খেতাব স্বাধীনতার পর শেখ মুজিবুর রহমান সরকারই দিয়েছিলো। এই খেতাবকে তুলে নেওয়ার যে অপচেষ্টা তার জনগণ কোনোদিনই মেনে নেবে না এবং এটাতে জনগনের কোনো যায়ও আসে না।”

মিডিয়া কমিটির আহবায়ক ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুর সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব শ্যামা ওবায়েদের পরিচালনায় মতবিনিময় সভায় দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্‌র চন্দ্র রায়, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, মিডিয়া কমিটির সদস্য মীর হেলাল উদ্দিন, আতিকুর রহমার রুমন, শায়রুল কবির খান, ফারজানা শারমিন পুতুল, ইয়াসির খান, মাহমুদা হাবিবা, শফিকুল ইসলাম, হুমায়ুন কবির, মীর সোলায়মান, নুরুল ইসলাম সাজু, বাবুল তালুকদার প্রমূখ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে কারাগারে বন্দি লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুতে একমিনিট নিরবতা পালন করে তার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

ব্রেকিংনিউজ/এএইচ/এমএইচ

bnbd-ads
breakingnews.com.bd
প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি