সাবেকদের চোখে গণ বিশ্ববিদ্যালয়

রাকিবুল হাসান, গণ বিশ্ববিদ্যালয়:
১৪ জুলাই ২০২০, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: ১১:২৯

সাবেকদের চোখে গণ বিশ্ববিদ্যালয়
গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থীরা

ক্লাসের আড্ডা ও খুনসুটি, স্বপ্ন দেখার সুযোগ, ক্যাম্পাসের লাল ইটের রাস্তায় প্রিয় মানুষটিকে নিয়ে হাঁটা, নিয়মিত বন্ধুদের সঙ্গে মেতে উঠার সুযোগ যাদের নেই। তাদেরকে নিয়ে ২৩তম বর্ষে পা রেখেছে সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয় (গবি)। 

আজ মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়টির জন্মদিবস। দিনটি উপলক্ষে বর্তমান শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি সাবেকদেরও আগ্রহ কম নয়। গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী নিয়ে কথা হলো তাদের সঙ্গে। তারা তাদের সময়কার স্মৃতি, অভিমত, পরামর্শ এবং এ বিদ্যাপীঠকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে। 

এক পিপীলিকা থেকে জগত জুড়ে

ফার্মেসি বিভাগের ২১তম ব্যাচের শিক্ষার্থী মৌসুমী বিনতে হক বলেন, গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালীন সময়ে সকল অনুষ্ঠানে সক্রিয় থাকার চেষ্টা করেছি। আর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী মানে আমাদের কাছে ছিল অন্যরকম একটি দিন। এই দিনগুলোর সঙ্গে জড়িয়ে আছে একগুচ্ছ স্মৃতি। দিনটিতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা একসঙ্গে মেতে উঠতো। বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্মদিন যেন বিশ্বজয়ের আনন্দ। এই দিনটির জন্যই জ্ঞানের আলো জড়িয়ে পড়ছে এক পিপীলিকা থেকে জগত জুড়ে। 

করোনা দুর্যোগে সহায়তার হাত

গণ বিশ্ববিদ্যালয় আমার কাছে মায়ার জায়গা। এই মায়া আজীবন অমলিন থাকবে। আমি মানসুরা হক রুপা। গণ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২০১৮ তে বিবিএ শেষ করেছি। ক্যাম্পাসে খেলাধুলা আড্ডায় দারুণ সময় কেঁটেছে। আজ গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৩তম জন্মদিন। অনেক অনেক শুভ কামনা। আগামীর পথচলা সুন্দর হোক। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের নিকট একটি অনুরোধ, এই করোনাকালীন কঠিন সময়ে ক্যাম্পাসের সকলের ভরসা হয়ে পাশে থাকবেন। পুরো ক্যাম্পাস লাইফে সবার ভালোবাসায় সিক্ত আমি। এই ভালোবাসার স্মৃতিতে কিছুই খারাপ লাগা নেই। শুভ জন্মদিন আমার প্রাণ প্রিয় ক্যাম্পাস। 

নিম্ন-মধ্যবিত্তদের সুযোগ দিতে হবে

প্রাণের গণ বিশ্ববিদ্যালয়কে জন্মদিবসের শুভেচ্ছা। গৌরবের সঙ্গে ২৩তম বর্ষে পা রেখেছে প্রতিষ্ঠানটি। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী হিসেবে গর্ববোধ করছি। গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতি সর্বদা শুভ কামনা থাকবে বলেছেন এসআই মো. মনসুর হোসেন মানিক সহ-প্রচার সম্পাদক বাংলাদেশ পুলিশ অ্যাসোসিয়েশন। 

ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের তৃতীয় ব্যাচের এই শিক্ষার্থী এ বিভাগের বর্তমান অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি। তিনি বলেন, প্রশাসনের নিকট অনুরোধ করছি শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করতে হবে। শিক্ষার্থীবান্ধব সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে। কম পয়সায় মেধাবীদের পড়ার সুযোগ দিতে হবে। বৃত্তির সংখ্যা বাড়ানো দরকার। নিম্ন-মধ্যবিত্তদের সুযোগ দিতে হবে। তাদেরকে এগিয়ে আনতে হবে। 

এছাড়া স্বয়ংসম্পূর্ণ এই বিশ্ববিদ্যালয় 

প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের ১ম ব্যাচের শিক্ষার্থী অরিনা এরফান অন্তু বলেন,
ভালবাসায় ভরপুর ক্যাম্পাস গণ বিশ্ববিদ্যালয়। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক উন্নতির জায়গা আছে।গবেষণা খাতে জোর দেওয়া জরুরি। শিক্ষার্থীদের জন্য পরিবহন ও আবাসিক হলের ব্যবস্থা করলে ভাল হয়। এছাড়া গণবিশ্ববিদ্যালয় স্বয়ংসম্পুর্ণ বলা চলে। গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের তেইশ কদমে শুভেচ্ছা। 

সাবেক ও বর্তমানের প্রাণের বিদ্যাপীঠ

রাজনীতি ও প্রশাসন বিভাগের ১১তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ও কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সাবেক সহ-সভাপতি (ভিপি) মো. শামীম হোসেন গণবিশ্ববিদ্যালয় কে শুভেচ্ছা জানিয়েছে। তিনি বলেন, এই সবুজে ঘেরা ক্যাম্পাসে পড়াশোনার পাশাপাশি রাজনীতি চর্চা ও ছাত্রদের অধিকার আদায়ের জন্য রয়েছে কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ। আমার দেখা প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে গণ বিশ্ববিদ্যালয় সেরা। এ বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে সুবিশাল ক্যাম্পাস। গণ বিশ্ববিদ্যালয় মানেই সাবেক ও বর্তমানের প্রাণের বিদ্যাপীঠ। ক্যাম্পাসের রুপ মন ছুঁয়ে যাবে সবার। 

গবেষণায় মনোযোগী হওয়া উচিৎ

কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইন্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগের ২০তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ও অগ্নিসেতু সাংস্কৃতিক পরিষদের সাবেক সভাপতি হোসাইনুল আরেফিন সেতু বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের এক একটি দিন ছাত্র জীবনের সোনালী মুর্হুত। 
ক্লাস-পরীক্ষা, গান, আড্ডা, খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের স্মৃতিগুলো বড্ড মনে পড়ে। 
পড়াশোনার পাশাপাশি সকল বিষয়ে পারদর্শী হয়ে ওঠার সুযোগ রয়েছে এই ক্যাম্পাসে। এই ক্যাম্পাস আমাকে অনেককিছু দিয়েছে। প্রিয় ক্যাম্পাসের জন্মদিনে শুভেচ্ছা। প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় বলতে যা বুঝতাম গণ বিশ্ববিদ্যালয় সে ধারণা পাল্টিয়ে দিয়েছে। তবে গবেষণায় প্রশাসনের আরও বেশি মনোযোগী হওয়া উচিৎ।

মেডিকেল ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ পেয়েছি একসঙ্গে 

ফিজিওথেরাপি বিভাগের ২৯তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ও গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সাবেক সহ-সভাপতি ডা. ওমর ফারুক বলেন, গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৩ বছরে পদার্পণে আমি খুবই উৎফুল্ল। আজ সাবেক হওয়ার পরও ক্যাম্পাসের প্রতি রয়েছে সেই শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা। স্বাস্থ্য অনুষদের শিক্ষার্থী হিসেবে মেডিকেল ও বিশ্ববিদ্যালয় উভয় পরিবেশের সাথে পরিচিত হতে পেরেছি। কালের পরিক্রমায় নতুনত্বের মিশ্রণ সংযুক্ত হয়ে ধীরে ধীরে ক্যাম্পাসটি আরও নতুন সাজে সজ্জিত হচ্ছে শুনেছি। এই শুভ দিনে হৃদয়ের অফুরন্ত ভালোবাসা ও শুভেচ্ছা ক্যাম্পাসের সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীসহ সকল শিক্ষার্থীর জন্য।

প্রাণবন্ত ১৪ জুলাইয়ের অপেক্ষা

আইন বিভাগের ৩য় ব্যাচের শিক্ষার্থী ও কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সাবেক নাট্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক হাফিজা খান নীলা বলেন, দুই খন্ডে পালিত হতো গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। প্রথমে ক্যাম্পাস থেকে র‍্যালীতে যেতাম এরপর পিএইচএ ভবনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান দেখতাম। সম্পূর্ণ ভিন্ন আমেজে দিনটি কাটতো। এক বছর ধরে অপেক্ষায় থাকতাম এই দিনটির জন্য। বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্দিষ্ট নীতিমালার বাইরে এসে নিজেকে সাজাতে পছন্দ করতাম। এতেই আমার গর্ববোধ ও আনন্দ লাগতো। রৌদ্রোজ্জ্বল সুস্থ পৃথিবীতে একটি প্রাণবন্ত ১৪ জুলাই কাটানোর অপেক্ষা এবং প্রত্যাশায় সকলের জন্য একরাশ শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা। শুভ জন্মদিন গণ বিশ্ববিদ্যালয়।

ব্রেকিংনিউজ/এসপি

breakingnews.com.bd
প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা, ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫, ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
প্রকাশক : মো: মাইনুল ইসলাম
 শারাকা ম্যাক, ২ এইচ-প্রথম তলা,
  ৩/১-৩/২ বিজয় নগর, ঢাকা-১০০০
 টেলিফোন : ০২-৯৩৪৮৭৭৪-৫,
 ইমেইল : breakingnews.com.bd@gmail.com
 নিউজরুম হটলাইন : ০১৬৭৮-০৪০২৩৮, ০২-৮৩৯১৫২৪
 নিউজরুম ইমেইল : bnbdcountry@gmail.com, bnbdnews.reporter@gmail.com
© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি