শিরোনাম:

১০ মাসে ধর্ষণের শিকার ৬৪৬ জন!

স্টাফ ক‌রেসপ‌ন্ডেন্ট
৬ ডিসেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: 7:57
১০ মাসে ধর্ষণের শিকার ৬৪৬ জন!

এ বছর জানুয়ারী থেকে অক্টোবর পর্যন্ত দেশে ধর্ষনের শিকার হয়েছে ৬৪৬ জন এবং গণধর্ষনের শিকার হয়েছে ১৬৫ জন বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ। 

বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের আয়োজনে ‘নারী ও কন্যা নির্যাতন এবং সামাজিক অনাচার প্রতিরোধ’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় এ তথ্য উল্লেখ করা হয়।

মতবিনিময় সভায় লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদে সংরক্ষিত ১৪টি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে জানুয়ারি থেকে অক্টোবর ২০১৮ পর্যন্ত সময়ের মধ্যে ধর্ষণের শিকার ৬৪৬ জন, গণধর্ষণের শিকার ১৬৫ জন, ধর্ষণের পর হত্যার শিকার ৫৩ জন, ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে ১১৫ জনকে, শ্লীলতাহানির শিকার ৫৫ জন, যৌন নির্যাতনের শিকার ১৪১ জন, উত্ত্যক্তকরণের শিকার ১৪০ জন, উত্ত্যক্তের কারণে আত্মহত্যা করেছেন ১৪ জন এবং এছাড়াও বিভিন্ন ধরনের নির্যাতনের শিকার হয়ে মোট ৩৫০২ জন নারী।  

লিখিত বক্তব্যে সংগঠনটি বলে, দেশের অর্থনৈতিক বিকাশের পাশাপাশি সামাজিক বিকাশ সমভাবে না হওয়ায় নারীর প্রতি প্রচলিত দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন সেভাবে হয়নি। নারী ও কন্যার প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে সরকার, নারী ও মানবাধিকার সংগঠন, উন্নয়ন সংস্থা পূর্বের তুলনায় আরও সংগঠিতভাবে বহুমাত্রিক পদ্ধতিতে কাজ করলেও বিগত বেশ কয়েক বছর যাবৎ নারী ও কন্যার প্রতি বর্বর, লোমহর্ষক নির্যাতনের ধরন ও মাত্রা উদ্বেগজনক।

মতবিনিময় সভায় বক্তারা বলেন, যৌন হয়রানি তথা সকল প্রকার নারী ও কন্যা নির্যাতনের বিরুদ্ধে জনসচেতনতা, জোরালো প্রতিরোধ ও প্রতিকার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। এছাড়াও মানবতার বিরুদ্ধে সংগঠিত সকল প্রকার অনাচার ও সহিংস আচরণের বিরুদ্ধে প্রতিরোধের সংস্কৃতি গড়ে তোলা ও এ লক্ষ্যে সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় নারী ও কন্যা নির্যাতন এবং সামাজিক অনাচার প্রতিরোধ করে নির্যাতন মুক্ত পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্র গড়ে তোলতে হবে।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন নাট্য ব্যক্তিত্ব মামুনুর রশীদ, কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আয়শা খানম, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের উপদেষ্টা সেলিনা খালেক, কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি ডা. মাখদুমা নার্গিস ও নাহার আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানুসহ প্রমুখ।

ব্রে‌কিং‌নিউজ/এএইচএস/জেআই

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2