শিরোনাম:

অরিত্রির আত্মহত্যা

রাজপথ ছেড়ে ক্লাসে ফেরার ঘোষণা ভিকারুননিসার শিক্ষার্থীদের

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
৬ ডিসেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: 7:09 আপডেট: 8:56
রাজপথ ছেড়ে ক্লাসে ফেরার ঘোষণা ভিকারুননিসার শিক্ষার্থীদের
ছবি: সালেকুজ্জামান রাজীব

রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রী অরিত্রী অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনায় শিক্ষকদের পক্ষ থেকে পর্যায়ক্রমে দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাসে আন্দোলন স্থগিত ঘোষণা করেছে শিক্ষার্থী। সেইসঙ্গে আগামীকাল শুক্রবার থেকে পরীক্ষা ও ক্লাসে ফিরে যাওয়ারও কথাও জানিয়েছে তারা। 

বুধবার (৬ ডিসেম্বর) বিকেল পৌনে ৫টার দিকে তিনদিন ব্যাপী লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি স্থগিত করে ক্লাস-পরীক্ষায় অংশ নেয়ার ঘোষণা আসে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে। 

এসময় শিক্ষার্থীদের মুখপাত্র আনুশকা রায় সাংবাদিকদের বলেন, ‘শিক্ষকরা আমাদের সব দাবি পর্যায়ক্রমে মেনে নেয়ার আশ্বাস দিয়েছে। আমরা শিক্ষকদের কথায় আশ্বস্ত থেকেই ক্লাসে ফিরে যাবো।’

তিনি বলেন, ‘শিক্ষকরা আমাদের জানিয়েছেন, অরিত্রি আত্মহত্যার মূল সত্য উদঘাটন করা হবে। আইনি বিষয়গুলো আইনি প্রক্রিয়ায়ই সমাধান করা হবে।’

এদিকে দুপুরে অরিত্রীর মা-বাবার কাছে ভিকারুননিসার পরিচালনা কমিটির পক্ষ থেকে ক্ষমা চেয়ে প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি গোলাম আশরাফ তালুকদার সংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা মর্মাহত। আমরা এ ঘটনায় জন্য অরিত্রীর বাবা-মায়ের কাছে ক্ষমা চাই।’

এর আগে গত সোমবার (৩ ডিসেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রাজধানীর শান্তিনগরে ৭তলা বাসার নিজ কক্ষে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় অরিত্রির মরদেহ পাওয়া যায়। 

ঘটনার পর দিন মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর পল্টন থানায় অরিত্রীর বাবা দিলীপ অধিকারী বাদী হয়ে দণ্ডবিধির ৩০৫ ধারায় ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস, শাখাপ্রধান জিন্নাত আরা ও শ্রেণিশিক্ষক হাসনা হেনাকে আসামি করে একটি মামলাটি দায়ের করেন।

অরিত্রির বাবা দিলীপ অধিকারীর অভিযোগ, স্কুলের পরীক্ষায় মোবাইল ব্যবহার করে নকলের অভিযোগে অরিত্রিকে পরীক্ষা হল থেকে বের করে দেয়া হয়। এর পর সোমবার সে আবারও পরীক্ষায় অংশ নিতে গেলে স্কুল কর্তৃপক্ষ তার বাবা-মাকে ডেকে পাঠায়। এতে অপমান বোধ করে নিজ কক্ষে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়নায় ফাঁস দিয়ে আত্মহনের পথ বেছে নেয় অরিত্রি। 

এ ঘটনায় গতকাল বুধবার (৫ ডিসেম্বর) ভিকারুননিসার অধ্যক্ষ ও শিক্ষকসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ৯ জানুয়ারি দিন ধার্য করেছেন আদালত। 

এর আগে বুধবার সকালে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মেনে ভিকারুননিসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস, শাখাপ্রধান জিনাত আখতার ও অরিত্রীর শ্রেণিশিক্ষক হাসনা হেনাকে বরখাস্ত করা হয়।

বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে উত্তরার একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে মামলার এজাহারভুক্ত আসামি শিক্ষিকা হাসনা হেনাকে গ্রেফতার করে ডিবি কার্যালয়ে নেয়া হয়। বুধবার বিকেলে পুলিশ তাকে আদালতে হাজির করে মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত কারাগারে আটক রাখার আবেদন করে। শুনানি শেষে আসামিপক্ষের আবেদন নামঞ্জুর করে হাসনা হেনাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন ম্যাজিস্ট্রেট আবু সাইদ।

উল্লেখ্য, অরিত্রির আত্মহত্যার ঘটনায় শিক্ষকদের প্ররোচনার অভিযোগ এনে ও ৬ দফা দাবি তুলে ধরে মঙ্গলবার সকাল থেকে ভিকারুননিসা নূন স্কুল ও কলেজের প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। টানা ৩ দিন অবস্থান কর্মসূচি শেষে শিক্ষকদের আশ্বাসে বৃহস্পতিবার বিকেলে শিক্ষার্থীরা ক্লাসে ফেরার ঘোষণা দেয়। 

ব্রেকিংনিউজ/এমআর

সংশ্লিষ্ট আরো খবর
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2