শিরোনাম:

‘ভয়াবহ নির্বাচনের দিকে এগিয়ে চলেছি আমরা’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
৫ ডিসেম্বর ২০১৮, বুধবার
প্রকাশিত: 1:16 আপডেট: 1:30
‘ভয়াবহ নির্বাচনের দিকে এগিয়ে চলেছি আমরা’

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অবঃ) হাফিজ উদ্দীন আহমেদ (বীরবিক্রম) বলেছেন, ভয়াবহ একটা নির্বাচনের দিকে আমরা এগিয়ে চলেছি। বুধবার (৫ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১১ টায় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

হাফিজ বলেন, বাংলাদেশ ধীরে ধীরে একটি প্রহসনের নির্বাচনের দিকে এগিয়ে চলেছে। বিএনপির ওপরে অনেক চাপ ছিল। আমরা যেন এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করি। স্বৈরাচারী সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না তা প্রমাণের জন্যই আমরা নির্বাচনে যাচ্ছি। এটা আমাদের আন্দোলনের একটা অংশ।

তিনি বলেন, আমি ভোলা-৩  আসনের একজন প্রার্থী, এ এলাকা থেকে ছয়বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছি। আসনটি সহিংসতার আখড়া। তিনশত আসনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি খুন, হত্যা, জখম, নির্বাচনী সহিংসতা এখানে হয়। কিন্তু যারা এ সকল ঘটনা ঘটায় তারা এতোই কৌশলী যে এসব ঘটনা পত্র-পত্রিকায় আসে না। যারা এসব ঘটনার সাথে যুক্ত, যারা এই ঘটনায় জড়িত তাদের বিরুদ্ধে কোন মামলা নাই, সরকার থেকেও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না বরং আমাদের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা হচ্ছে।

সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, আগামী ৯ তারিখের পর উন্মুক্ত হবে বিভিন্ন নির্বাচনী এলাকা। কিন্তু আমাদের নেতাকর্মীরা তাদের এলাকায় যেতে পারছে না। মিথ্যা মামলার হয়রানির কারণে। আমরা সিইসিকে বিষয়টি জানানোর পরও কোন প্রতিকার পাইনি। 

হাফিজ বলেন, বাংলাদেশ একটা পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। পুলিশ কর্মকর্তারা ইতোমধ্যে সিইসিকে জানিয়ে দিয়েছেন কোন ট্রান্সফার চলবে না। প্রতিটি নির্বাচনের আগে অস্ত্র উদ্ধারের জন্য ক্যাম্পেইন চলে, কিন্তু এবার তার নাম গন্ধ নাই। তফসিল ঘোষণার আগে বৈধ অস্ত্রধারীদের অস্ত্র জমা দিতে হয়। এবার তার কোন উদ্যোগ নাই। কারণ আওয়ামী লীগে যত সন্ত্রাসীবাহিনী আছে তাদের বৈধ অস্ত্র দিয়েছে বর্তমান সরকার। এই অস্ত্র ব্যবহার করা হবে বিএনপি এবং বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের ওপর।

তিনি বলেন, এই ধরনের নির্বাচনের অংশগ্রহণের বিষয়টি এখন পুনরায় বিবেচনার সময় এসেছে। আগামী কিছু দিনের মধ্যে আমরা অনেক কর্মী হারাবো। অনেকের হাত পা বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে, অনেকে জীবনের জন্য পঙ্গু হয়ে থাকবেন। ভয়াবহ একটা নির্বাচনের দিকে আমরা এগিয়ে চলেছি।

বিএনপির এই নেতা বলেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট যে সকল দাবি দাওয়া দিয়েছে নির্বাচন কমিশনের কাছে এবং প্রধানমন্ত্রীর কাছে তার একটিও মানা হয়নি। তারপরও আমরা কেন নির্বাচনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। নেতাকর্মীর কাছে এখন এটি চিন্তার বিষয়। মিডিয়ার কাছে আশা রাখবো আপনারা বৈষম্যহীনভাবে কাজ করবেন।

সংবাদ সম্মেলনে দলটির ভাইস-চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দীন আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ব্রেকিংনিউজ/এএইচ/এনকে

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2