শিরোনাম:

আপত্তিকর ভিডিও করে প্রকাশ করার হুমকি দিত অপহরণকারীরা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
২ ডিসেম্বর ২০১৮, রবিবার
প্রকাশিত: 2:31 আপডেট: 2:33
আপত্তিকর ভিডিও করে প্রকাশ করার হুমকি দিত অপহরণকারীরা

রাজধানী থেকে আটক অপহরণকারী চক্রটি নারীযাত্রী অপহরণ করে শারীরিক নির্যাতন করতো। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে না জানাতে মোবাইল ফোনে ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম্যে প্রকাশ করার হুমকিও দিত তারা।

রবিবার (২ ডিসেম্বর) অপহরণকারীদের নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাবের মুখপাত্র মুফতি মাহমুদ খান এ তথ্য জানান।

এ ঘটনায় আটককৃতরা হলেন- ইমরান (২১), জিহাদ আলী (১৮), শান্ত হোসেন (১৯), রকিবুল হাসান (১৮), রাকিবুল ইসলাম (১৯), নাঈম মিয়া (১৯), জুলহাস (১৮), বাবুল হোসেন (২২), হাবিবুর রহমান (২৭)।

মুফতি মাহমুদ খান বলেন, রাজধানীতে চলাচল করা মৌমিতা পরিবহন (নারায়ণগঞ্জ চাষাড়া হতে গাজীপুর চন্দ্রা)  এবং আসমানী পরিবহন (নারায়ণগঞ্জ মোদনপুর হতে উত্তরা) চলাচলকালে এই অপহরণের কাজ করতো তারা। সাধারণত তারা নির্দিষ্ট বাস স্টপেজ না দাঁড়িয়ে তাদের পছন্দের জায়গায় দাঁড়াতো। সেখানে দুই-একজন যাত্রী মাঝে অপহরণকারী চক্রের সদস্যেরা যাত্রীর ছদ্মবেশে বাসে উঠতো। এক পর্যায়ে নারী যাত্রীদের শারীরিক নির্যাতন করে, তা মোবাইলে ধারণ করতো। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে না জানাতে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম্যে ছেড়ে দেবার হুমকি দিত।

তিনি বলেন, অন্যদিকে সন্ধ্যা কিংবা রাতের পর থেকেই চক্রটি সুযোগ-সুবিধা মতো পুরুষ যাত্রীদের বাসে তুলে দরজা বন্ধ করে দিত। এসময় চক্রের সদস্যেরা বাসে বসে থাকতো। পরে গলায় ছুরি ধরে তাদের কাছে যা কিছু থাকতো নিয়ে নিতো। ভিকটিমের ফোন দিয়েই তার পরিবারে সঙ্গে কথা বলে মুক্তিপণ হিসেবে লাখ লাখ টাকা দাবি করতো। 

র‍্যাব কর্মকর্তা বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে চক্রটি জানিয়েছে তাদের গ্রুপে ৩০/৩৫ জনের মতো সদস্যে আছে। যার নেতৃেত্ব আছে আটককৃত- ইমরান, জিহাদ, শান্ত। তাদের টার্গেট ছিল মাসে ১০/১২ টা করে অপহরণ করা। প্রত্যেক ভিকটিমের কাছে থেকে মুক্তিপণ হিসেবে তারা ৫০ থেকে ৭০ হাজার টাকা আদায় করতো।

র‍্যাবের এই মুখপাত্র আরও বলেন, চক্রটি প্রায় ৪/৫ বছর ধরে কাজ করে। এদের মাঝে অনেকেই জেলে ছিলেন। তাদের নামে রাজধানীর বিভিন্ন থানায় মামলাও আছে।

আটকের সময় তাদের কাছ থেকে দেশিও অস্ত্র, একটি পিস্তল, ২ রাউন্ড গুলি, মোবাইল, ম‍্যাগাজিন এবং অপহরণ কাজে ব্যবহৃত মৌমিতা ও আসমানী নামের ঐ দুটি বাস জব্দ করা হয়।

ব্রেকিংনিউজ/টিটি/এসএ 

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2