শিরোনাম:

নির্বাচন আয়োজনে কমিশন তাড়াহুড়া করছে: বি. চৌধুরী

স্টাফ ক‌রেসপ‌ন্ডেন্ট
৯ নভেম্বর ২০১৮, শুক্রবার
প্রকাশিত: 8:32
নির্বাচন আয়োজনে কমিশন তাড়াহুড়া করছে: বি. চৌধুরী

নির্বাচন কমিশন সংসদ নির্বাচন আয়োজন তাড়াহুড়া করছে উল্লেখ করে বিকল্পধারা বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ও যুক্তফ্রন্টের চেয়ারম্যান এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী (বি. চৌধুরী) বলেছেন, ‘নির্বাচন আসে পাঁচ বছর পর পর। নির্বাচনের আগে জনগণের কাছে যেতে হয়। সংগঠিত করতে হয়। এ সুযোগ তো দিতে হবে। এমন তো নয় যে, সময় নেই।’

তিনি বলেন, ‘এখনো সরকারের সঙ্গে কথা বলতে হবে। তাই আমার দাবি, নির্বাচনের সময় আরও সাতদিন বাড়িয়ে দিন। সবার কল্যাণে অবশ্যই সময় বাড়িয়ে দিন।’ 

শুক্রবার (৯ নভেম্বর) সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে এক স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ জনদলের প্রধান উপদেষ্টা এ. আর. চৌধুরী (সামাদ) স্মরণে তার সংগঠন এই সভার আয়োজন করে। 

বি. চৌধুরী বলেন, ‘সরকারের সঙ্গে আমরা সংলাপ করেছি। আমরা দাবি করছি লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড করে দেন। সমান মাঠ না হলে ভাল খেলা হয়না। আমরা সুস্পষ্ট করে বলেছি, সংসদ ভেঙে দিতে হবে অথবা নিষ্ক্রিয় করে দিতে হবে। যেন কেউ কোনো ক্ষমতা ব্যবহার করতে না পারে। নির্বাচনে অবশ্যই সেনা মোতায়ন করতে হবে। সেসময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষকারী বাহিনীকে বিচারিক ক্ষমতা দিতে হবে। এতে কোথাও গোলমাল হলে সঙ্গে সঙ্গে বিচার করা যাবে। শুধু দেখার জন্য পুলিশ মাঠে থাকবে এটা হবে না।’

তিনি বলেন, ‘বিগত কয়েকটি সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দেখেছি কিছু কিছু প্রার্থীর এজেন্টদের কেন্দ্র ঢুকতে দেওয়া হয়না। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে কেন্দ্র এজেন্ট থাকা গুরুত্বপূর্ণ। তফসিল ঘোষণা হয়ে গেছে। এখন থেকে কাউকে গ্রেফতার করা যাবে না। যদি কোনো পুলিশ কর্মকর্তা এ কাজ করেন তাহলে তার কী শাস্তি হবে তা জানতে চাই।’

বাংলাদেশের সাবেক এই রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনকে সত্যিকার অর্থে নিরপেক্ষ হতে হবে। এখন থেকে সব সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারী নির্বাচন কমিশনের অধীনে। আপনারা নিরপেক্ষ থাকুন। এবার আপনাদের ক্ষমতা দেখান। নাকি রাজশাহী, গাজিপুরের মার্কা  নির্বাচন দেখাবেন?’

নির্বাচন কমিশনারের উদ্দেশ্যে বি. চৌধুরীর বলেন, ‘আপনি সুযোগ পেয়েছেন। সংবিধান আপনাকে সুযোগ দিয়েছে। আপনি সুষ্ঠু নির্বাচন করুন। ইতিহাস আপনার নাম উজ্জল হয়ে থাকবে।’

‘আমার ভোট আমি দেব, তোমার ভোটও আমি দেব এই সংস্কৃতি থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে’- বলেন বি. চৌধুরী।

সামাদ চৌধুরীর ছেলে মাহবুবুর রহমান জয় চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন যুক্তফ্রন্ট নেতা অ্যাডভোকেট মো. দেলোয়ার।  


ব্রেকিংনিউজ/এএইচএস/জেআই


Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2