শিরোনাম:

তফসিল ঘোষণার পর পরবর্তী কৌশল নির্ধারণ করবে বিএনপি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
৭ নভেম্বর ২০১৮, বুধবার
প্রকাশিত: 11:42 আপডেট: 12:27
তফসিল ঘোষণার পর পরবর্তী কৌশল নির্ধারণ করবে বিএনপি

বিএনপির শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে দলের ভাইস চেয়ারম্যান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা, যুগ্ম মহাসচিব, সাংগঠনিক সম্পাদক ও সম্পাদক পর্যায়ের নেতাদের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৈঠকে, আগামী নির্বাচনে অংশ নেয়া না নেয়া, আজ বৃহস্পতিবার তফসিল ঘোষণা হলে পরবর্তিতে কি করণীয় ও আগামী আন্দোলনের পরিকল্পনাসহ নানা বিষয়ে নেতাকর্মীদের কাছ থেকে পরামর্শ নেয়া হয় বলে হয় বলে বৈঠক সূত্রে জানা গেছে। সেই সাথে, আজ নির্বাচন কমিশনের তফসিল ঘোষণার পর পরবর্তী কৌশল নির্ধারণ করা হবে বলেও জানা যায়। 

বুধবার (৭নভেম্বর) রাজধানীর গুলশান বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বিকেল ৩টা থেকে পর্যায়ক্রমে রাত প্রায় সাড়ে নয়টা পর্যন্ত এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। 

বৈঠকে নেতারা বলেন, বেগম জিয়াকে মুক্ত করেই আগামী নির্বাচনে যাওয়ার ব্যাপারে সবাই ঐক্যমত। তবে, আলোচনা সফল না হলে সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য আন্দোলনের বিকল্প নেই বলে সকলেই তাদের মতামত ব্যক্ত করেন। 

এর আগে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বৃহস্পতিবার তফসিল ঘোষনা তারিখ রয়েছে, তফসিল ঘোষণার হলে আমরা আমাদের রোডমার্চের সিদ্ধান্ত নেবো। আপাতত রোডমার্চ স্থগিত। তফসিল ঘোষণা ও যেসব জেলার উপর দিয়ে রোর্ডমার্চ যাবে সেখানকার নেতাকর্মীদের মামলা, গ্রেফতার হওয়ার বিষয়গুলোর করণেই মূলত বৃহস্পতিবারের রোর্ডমার্চ স্থগিত করেছি।

তিনি বলেন,  দু'দফা সংলাপে মূল বিষয়গুলোতে কোন ফলাফল পাইনি, আবারো আলোচনার কথা বলেছি। দেখা যাক কি হয়। তাছাড়া চলমান আন্দোলনের অংশ হিসেবেই  সংলাপে যাওয়া, আমার বলেছি আলোচনার কথা তারা সময় বের করেবেন এবং কিছুটা রাজিও হয়েছেন তারা।

এ সময় কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেন,  প্রধানমন্ত্রী আলোচনায় বলেছেন, রাস্তা বন্ধ করবেন না, মাঠে সমাবেশ করুন কাউকে গ্রেফতার করা হবে না, কিন্তু গতকালের জনসভা শেষে অসংখ্য নেতাকর্মী গ্রেফতার করা হয়েছ। প্রধানমন্ত্রী বলেন একরকম, তার নিচের লোকেরা কাজ কর্ম করেন আরেক রকম। গাড়ি চলছে উল্টোপথে, দেশ চলছে উল্টোপথে।

বৈঠক শেষে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে আন্দোলনও চলবে নির্বাচনও চলবে। তবে আমাদের মূল লক্ষ্য হচ্ছে নির্বাচনের আগে বেগম জিয়ার মুক্তি। আমরা চাই বেগম জিয়াকে নিয়েই নির্বাচনে যেতে।

বৈঠকে শীর্ষ নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, নজরুল ইসলাম খান, গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও ড. আব্দুল মঈন খান। ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, আব্দুল্লাহ -আল নোমান,  ডাকসুর ভিপি আমান উল্লাহ আমান, হাবিবুর রহমান হাবিব।

ব্রেকিংনিউজ/এএইচ/ এমজি

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2