শিরোনাম:

তরিকুলের মৃত্যুতে ফেসবুকে শোকের বন্যা

সোস্যাল মিডিয়া ডেস্ক
৪ নভেম্বর ২০১৮, রবিবার
প্রকাশিত: 8:15 আপডেট: 8:18
তরিকুলের মৃত্যুতে ফেসবুকে শোকের বন্যা

সবাইকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ, বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য, সাবেক মন্ত্রী তরিকুল ইসলাম। তরিকুল ইসলামের মতো আপাদমস্তক জনদরদী রাজনীতিবিদ হারিয়ে শোকাতর দল-মত নির্বিশেষে সকলেই। তরিকুল ইসলামের জন্য এ কান্নার ঢেউ পৌঁছেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও। নানা জন তাদের ফেসবুক ওয়ালে স্টাটাস দিয়ে শোক জানাচ্ছেন বর্ষীয়ান এ রাজনীতিবিদের জন্য। 

এটিএন নিউজের হেড অব নিউজ প্রভাষ আমিন লিখেছেন, ‘বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী তরিকুল ইসলাম অনেকদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন। আজ তিনি চলে গেলেন সবকিছুর উর্ধ্বে। শুধু যশোর নয়, জাতীয় রাজনীতিতেও তার প্রবল প্রভাব ছিল। বাংলাদেশের রাজনীতি তরিকুল ইসলামকে মিস করবে। তার আত্মার শান্তি কামনা করছি।’

চলচ্চিত্র পরিচালক হাসিবুর রেজা কল্লোল তরিকুল ইসলামের বাই সাইকেল চালানোর একটি ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘‘তরিকুল ইসলাম:আমার ভীষণ শ্রদ্ধার একজন মানুষ। অনেক বড় রাজনীতিক ছিলেন। তাঁকে বলা হতো ‘ ভয়েজ অব সাউথ বেঙ্গল’। এই একজন মানুষ আমাকে ডাকতেন ‘রাজ্জাকের ছেলে’ বলে। খুব স্নেহ করতেন। কিছুক্ষণ আগে তিনি মৃত্যুবরণ করেছেন। তাঁর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি। শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।’’

সরওয়ার উদ্দিন সেলিম নামে একজন স্ট্যাটাস লিখেছেন, ‘বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য, বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ, সাবেক মন্ত্রী, জননেতা তরিকুল ইসলাম ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। আল্লাহ্ উনাকে জান্নাতুল ফেরদৌস নসিব করুন, আমিন।’

সুমন আহসান নামে একজন লিখেছেন, ‘আরেকটি নক্ষত্রে বিদায়...। অসময়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির অন্যতম সিনিয়র সদস্য, সাবেক সফল মন্ত্রী, দক্ষিণবঙ্গের কৃতিসন্তান, জননেতা জনাব তরিকুল ইসলাম। (ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্নাইলাইহে রাজিউন)।’

মশিউর বিপ্লব লিখেন, ‘বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ, দক্ষিণবঙ্গের সিংহ পুরুষ, বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য জননেতা জনাব তরিকুল ইসলাম ইন্তেকাল করেছেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন। আমি তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি। আল্লাহ তাকে জান্নাতবাসী করুক।’

রবিবার (৪ নভেম্বর) বিকেল ৫টায় রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন তরিকুল। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর।

তরিকুল ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে কিডনি ও ডায়াবেটিসসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগছিলেন। গত একমাস ধরে তিনি অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

উল্লেখ্য, তরিকুল ইসলামের জন্ম ১৯৪৬ সালের ১৬ নভেম্বর যশোর শহরে। ১৯৬১ সালে যশোর জিলা স্কুল থেকে প্রবেশিকা, ১৯৬৩ সালে এমএম কলেজ থেকে আইএ, ১৯৬৮ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অর্থনীতিতে বিএ (অনার্স) ও ১৯৬৯ সালে এমএ ডিগ্রি অর্জন করেন।

তরিকুল ইসলাম ১৯৯১ সালে খালেদা জিয়ার সরকারে প্রথমে সমাজকল্যাণমন্ত্রী এবং পরে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী ছিলেন। বিএনপির সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটিতে আসার আগে তিনি সহ-সভাপতিসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে ছিলেন।

স্বাধীনতার পর বাম রাজনৈতিক দলে থাকা অবস্থায় জিয়াউর রহমানের ডাকে বিএনপিতে যোগ দিয়েছিলেন তরিকুল ইসলাম।

তরিকুল ইসলামের মৃত্যুতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ বিএনপির অনেক জেষ্ঠ্য নেতা গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

ব্রেকিংনিউজ/জেআই

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2