শিরোনাম:

২১ আগস্ট হামলা মামলা

রায় ঘিরে নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকার নির্দেশ কাদেরের

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
৯ অক্টোবর ২০১৮, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: 8:32 আপডেট: 10:48
রায় ঘিরে নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকার নির্দেশ কাদেরের

আলোচিত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে কেন্দ্র করে যেকোনও নাশকতা মোকাবিলায় আওয়ামী লীগের প্রত্যেক নেতাকর্মীদের সতর্ক অবস্থানে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

আগামীকালের রায়কে সামনে রেখে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেছেন, ‘আমরা কাউকে আক্রমণ করবো না, তবে আক্রান্ত হলে দাঁতভাঙা জবাব দেবো। আগামীকাল সবাই সতর্ক থাকবেন। কোনও অবস্থায় উত্তেজিত হওয়া যাবে না।’

মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) রাজধানীর শ্যামপুরের মীর হাজারীবাগ মোড়ে গণসংযোগকালে তিনি এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমরা ন্যায়বিচার চাইছি। আমরা অতিরিক্ত কিছু দাবি করছি না। যে অপরাধী তাকে অপরাধী হিসেবে চিহ্নিত করতে হবে। সে যেই হোক যত প্রভাবশালীই হোক। এত রক্ত এত প্রাণহানি তার বিচার কি বাংলাদেশে হবে না?’

‘আওয়ামী লীগের সুবিধাবাদী চক্র ২১ আগস্টের সঙ্গে জড়িত’- বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এ বক্তব্যের কঠোর সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘মিথ্যাচারের জন্য নোবেল পুরস্কার দেয়ার ব্যবস্থা থাকলে ফখরুল সাহেবকে দেয়া উচিত। বিএনপি মহাসচিব মিথ্যাচার দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকেও ছাড়িয়ে গেছেন। এরকম ফাঁপা মিথ্যা কথাও বিএনপি মহাসচিব বলতে পারেন!’

কাদের বলেন, ‘আমাদের ৫০০ নেতাকর্মী এখনও স্প্রিন্টার বহন করে যাচ্ছে। আমরা এখনও নামাজের সিজদায় দাঁড়াতে পারি না। আমি নিজেও এখনও সেজদা দিতে পারি না। ফখরুল সাহেব, সংসদে বিরোধী দলের নেতা দাঁড়ালে অটোমেটিক মাইক অন হয়ে যায়। কিন্তু সেদিন আর অন হলো না। আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা তৎকালীন বিরোধীদলের নেত্রী বলেছিলেন, আমি কিছু বলতে চাই। তখনকার প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া কি বললেন? ওনাকে আবার কি মারবেন! শেখ হাসিনা নাকি ভ্যানিটি ব্যাগে করে গ্রেনেড নিয়ে গিয়েছিলেন!’

বিএনপির সমালোচনা করে কাদের বলেন, ‘কি নিষ্ঠুর কি নির্মম এই দলটি। মিথ্যাচারে বেগম জিয়ার থেকেও এককাঠি এগিয়ে গেলেন ফখরুল সাহেব। এদের হাতে কি গণতন্ত্র নিরাপদ?’

গণসংযোগ কর্মসূচি আরও দীর্ঘ হবে জানিয়ে কাদের বলেন, ‘নেত্রী আমাকে বলেছেন নির্বাচন পর্যন্ত এই গণসংযোগ কর্মসূচি চালিয়ে যেতে। নির্বাচন ডিসেম্বরে হোক কিংবা জানুয়ারিতে; আমরা প্রস্তুত আছি। আমি আমার নেতাকর্মীদের বলবো মাথা গরম করবেন না। উস্কানির ফাঁদে পা দেবেন না। আক্রমণ করবেন না, আক্রান্ত হলে দাঁতভাঙা জবাব দেয়ার জন্য প্রস্তুত থাকবেন।’

বিএনপি নেতাদের সর্বাত্মক আন্দোলনের ডাকে জনগণ সাড়া দেবে না দাবি করে কাদের বলেন, ‘তারা এবার আন্দোলনের ডাক দিলে গণপিটুনি খাওয়ার সম্ভাবনা আছে।’

শ্যামপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি তোফাজ্জল হোসেনের সভাপতিত্বে গণসংযোগ কর্মসূচিতে আরও উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আবুল হাসনাত, সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ ও ৫১ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর কাজী হাবিবুর রহমান হাবু প্রমুখ।

ব্রেকিংনিউজ/আরএইচ/এমআর

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
সর্বাধিক পঠিত
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2