শিরোনাম:

খুলনায় তিন মাসে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১১১

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, খুলনা
৪ অক্টোবর ২০১৮, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: 5:49
খুলনায় তিন মাসে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১১১

খুলনা বিভাগের বিগত ৩ (জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর) মাসে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ১১১ জন আর আহত হয়েছেন ১৭৪ জন। সড়ক দুর্ঘটনার তথ্য ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সড়ক দুর্ঘটনা রোধে করণীয় বিষয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) খুলনা জেলা শাখা এ তথ্য জানিয়েছে। 

খুলনা প্রেসক্লাবে বৃহস্পতিবার (৪ অক্টোবর) দুপুর ১২টায় এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য রাখেন নিসচা’র খুলনা জেলা শাখার উপদেষ্টা ও আওয়ামী লীগ খুলনা সদর থানা সভাপতি অ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম। সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)’র কেন্দ্রিয় কমিটির সদস্য ও খুলনা জেলা সাধারণ সম্পাদক এসএম ইকবাল হোসেন বিপ্লব।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বর্তমানে সারা দেশে বিভিন্ন কারণে সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। সড়ক দুর্ঘটনা সব সময়েই আমাদের দেশে একটি বড় ধরনের সামাজিক সমস্যা। খুলনা মহানগরীতে সড়ক দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ বেপরোয়া মহেন্দ্র, মোটরসাইকেল, ইঞ্জিন চালিত রিকশা, অপরিকল্পিত ইজিবাইক এবং দিনের বেলা নগরীতে ট্রাক চলাচল। এছাড়াও রাস্তার পাশে ইট বালু রাখা, ট্রাফিক আইন না মানা ইত্যাদি।  পাশাপাশি খুলনা বিভাগের মধ্যে যশোরে দুর্ঘটনার হার বেশি এবং নিহত-আহত সংখ্যাও বেশি। দুঘটনার হার কম ছিল নড়াইল জেলায়।

তারা জানায়, বিগত জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর ২০১৮ পর্যন্ত খুলনা বিভাগে সড়ক দুর্ঘটনায় মোট নিহত ১১১জন এবং আহত ১৭৪ জন। জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সড়ক দুর্ঘটনায় মোট নিহত ১১১ জন, আহত ১৭৪ জন এর মধ্যে খুলনা জেলায় নিহত হয়েছেন ২৩ জন, আহত ৩৭ জন। বাগেরহাটে নিহত ১২, আহত ২৫।  সাতক্ষীরায় নিহত ১৪, আহত ৩০। যশোর জেলায় নিহত ২৩, আহত ৪৪। ঝিনাইদহ জেলায় নিহত ১১, আহত ২০। মাগুরা জেলায় নিহত ৫, আহত ১১ । চুয়াডাঙ্গা জেলায় নিহত ২।  কুষ্টিয়া জেলায় নিহত ১৭, আহত ৪। মেহেরপুর জেলায় নিহত ১ ও  নড়াইল জেলায় নিহত ৩জন, আহত ৩জন।

সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয়, খুলনা মহানগরীতে বর্তমানে আইন ভঙ্গ করে সড়ক গুলোতে ইট-বালুর অবাধে ব্যবসা এবং বাড়ি-ঘর নির্মাণের জন্য রাস্তার উপর ইট-বালু-রড-সিমেন্ট ব্যবহার করা হচ্ছে। এবং ঢালায়ের কাজে যে রড ব্যবহার হয় তা রাস্তায় কাটা হচ্ছে এর ফলে একদিকে যেমন সড়কগুলো নষ্ট হচ্ছে অন্যদিকে দুর্ঘটনার সংখ্যাও বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং নগরীতে ব্যাপক বায়ু দূষণ হচ্ছে।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিআরটিএ খুলনা বিভাগীয় উপ-পরিচালক মো. জিয়াউর রহমান, জেলা সভাপতি মো. হাছিবুর রহমান হাছিব, সহ-সভাপতি মো. সেলিম খান, ক্রীড়া সংগঠক মো. ইউছুপ আলী, সামসুদ্দিন আহমেদ সাম, খুলনা উন্নয়ন ফোরমের মহাসচিব এমএ কাশেম, বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন আন্দোলনের চেয়ারম্যান শেখ মো. নাসিরউদ্দিন, কামরুল কাজল, আনায়ারা পারভীন পরি, নিসচার সাংগঠনিক সম্পাদক এসএমএ রহিম, দপ্তর সম্পাদক এম মোস্তফা কামাল, শিক্ষক জিএম মহিউদ্দিন, শেখ আব্দুল হালিম, লুৎফুন নাহার লাভলী, সাহানা আক্তার ও শামসুন নাহার লিপি প্রমুখ।

ব্রেকিংনিউজ/এসএইচ/এনএসএন

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2