শিরোনাম:

কেসিসিতে কোনো অনিয়ম-দুর্নীতি মেনে নেয়া হবে না: তালুকদার খালেক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, খুলনা
২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: 7:21
কেসিসিতে কোনো অনিয়ম-দুর্নীতি মেনে নেয়া হবে না: তালুকদার খালেক

খুলনা সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী দেশকে গত ১০ বছরে উন্নয়নের যে পর্যায়ে নিয়ে গেছেন তা কোনো অবস্থাতেই ব্যর্থ হতে দেব না। কেসিসিকে সুন্দর ও শান্তিপূর্ণভাবে বসবাসের যোগ্য করে গড়ে তোলা হবে। কেসিসিতে কোনো অনিয়ম, দুর্নীতি মেনে নেয়া হবে না।’

মঙ্গলবার (২৫ সেপ্টেম্বর) নবনির্বাচিত মেয়র হিসেবে দায়িত্বগ্রহণের পূর্বে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘খুলনার উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী অত্যন্ত আন্তরিক। ইতোমধ্যে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য ৮২৩ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন। যে অর্থ ব্যয় হবে নগরীর মধ্য দিয়ে বয়ে চলা খাল, জলাশয় ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন। এ কাজ করতে যে কোনো প্রতিবন্ধকতা কঠোরভাবে দমন করা হবে। নগরীর মধ্য দিয়ে বয়ে চলা খালে দখলবাজদের উচ্ছেদ করা হবে।’

খুলনা সিটি করপোরেশনের মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা পলাশ কান্তি বালার সভাপতিত্বে দায়িত্ব হস্তান্তর অনুষ্ঠানে বিদায়ী মেয়র মনিরুজ্জামান মনির উদ্দেশ্যে তালুকদার আব্দুল খালেক বলেন, ‘এই হস্তান্তর অনুষ্ঠানে না এসে ভুল করেছেন। তুচ্ছ কারণে আপনি অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত রয়েছেন। এর হিসাব নগরবাসীকে আপনার দিতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘নগরবাসীর সাথে আপনি প্রতারণা করেছেন। আপনি বলেছেন দল ক্ষমতায় না থাকায় নগরীর উন্নয়নে বরাদ্দ বঞ্চিত হয়েছেন। বরাদ্দ আনতে হলে দলের সরকার নয় নিজের যোগ্যতা লাগে।  খুলনাবাসী একজন অযোগ্য মেয়রের কবল থেকে কেসিসিকে রক্ষা করেছেন। বিগত সময়ে সরকার কেসিসির উন্নয়নে প্রায় ৮ শত কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। সেই টাকা কোথায় কিভাবে ব্যয় হয়েছে তার প্রতিটি পয়সার হিসেব নেয়া হবে। এ থেকে কেউ রেহাই পাবেন না।’

খুলনা সিটি কর্পোরেশনের নব নির্বাচিত মেয়র বেলা ৪ টা ২৫ মিনিটে বক্তব্য শুরু করে ৪ টা ৪২ মিনিটে বক্তব্য শেষ করেন। এরপর ৪টা ৪৩ মিনিটে কেসিসির প্যানেল মেয়র ১ মো. আনিছুর রহমান বিশ্বাস তালুকদার খালেকের নিকট আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব হস্তান্তর করেন।

আমন্ত্রিত অতিথি রাজশাহী সিটি করপোরেশনের নব নির্বাচিত মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ‘খুলনার মানুষের জন্য আজকের দিনটি খুব আনন্দের। কেসিসি নির্বাচনের পূর্বে খুলনায় জনসংযোগে এসে খুলনার মানুষের আশা আকাঙ্খা দেখেছি। তারা উন্নয়ন চেয়েছিল। খুলনার উন্নয়নে খুলনার মানুষ তাদের যোগ্য ব্যক্তি হিসেবে তালুকদার খালেককে মেয়র হিসেবে নির্বাচিত করেছে। এতেই প্রমাণিত হয় শেখ হাসিনার প্রতি খুলনার মানুষের আস্থা ও ভালবাসা রয়েছে।’

অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহবুব হোসেন বলেন খুলনাবাসী তাদের যোগ্য জনপ্রতিনিধি বেছে নিয়েছেন। সেই যোগ্য মানুষটি হচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীর অত্যন্ত আস্থাভাজন তালুকদার আব্দুল খালেক।

তালুকদার খালেকের হাতে জাদু রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন ‘মেয়রের চেয়ারে বসার আগেই ৮২৩ কোটি টাকার বরাদ্দ পেয়েছেন। এই অর্থ ব্যয় হবে নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে। আরও ৬শ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়ার পর্যায়ে রয়েছে। এছাড়া খুলনা মহানগরীর সুপেয় পানির সঙ্কট দূর করতে ওয়াসা মধুমতি নদী থেকে পানি এনে তা নগরীতে সরবরাহ করবে। এ কাজ অর্ধেকের বেশি বাস্তবায়নের পথে।’

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা পলাশ কান্তি বালা। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিজান, খুলনা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশিদ, খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার হুমায়ূন কবীর পিপিএম, বাগেরহাট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামরুজ্জামান টুকু, খুলনা বিভাগীয় কমিশনার মো. লোকমান হোসেন মিয়া।

এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাবেক শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, খুলনা- ৫ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শেখ নুরূল হক, বাগেরহাট-৩ আসনের সংসদ সদস্য তালুকদার খালেক পত্নী হাবিবুন্নাহার, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. ফায়েক উজ্জামান, খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর কাজী সাজ্জাদ হোসেন প্রমুখ।

ব্রেকিংনিউজ/এসএইচ/এনএসএন

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2