শিরোনাম:

করতোয়ার ভাঙ্গনে হুমকিতে পীরগঞ্জের টুকুরিয়া ইউনিয়ন

স্টাফ করেসপন্ডেপন্ট, রংপুর
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, শনিবার
প্রকাশিত: 2:29
করতোয়ার ভাঙ্গনে হুমকিতে পীরগঞ্জের টুকুরিয়া ইউনিয়ন

রংপুরের পীরগঞ্জে উজানের ঢলে করতোয়া নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ার পর তা কমতে শুরু করেছে,কিন্তু ভাঙ্গছে গ্রামের পর গ্রাম। ইতোমধ্যেই উপজেলার টুকুরিয়া ইউপির বিছনা, সুজারকুঠি, দক্ষিণ দুর্গাপুর গ্রামের সিংহভাগ করতোয়ার নদী গর্ভে চলে গেছে। 

আবাদী জমি, বসতবাড়ি হারিয়ে শতাধিক পরিবার আশ্রয়হীন হয়ে পড়েছে। নদীটির ভাঙ্গন না ঠেকালে আর কয়েক দিনেই টুকুরিয়া ইউনিয়নের আরও ৬ গ্রাম নদীতে বিলীন হয়ে যাবে।

ইউনিয়নটির চেয়ারম্যান ও আতংকিত এলাকাবাসী বলেন, রংপুর ও দিনাজপুর সীমানায় বয়ে যাওয়া করতোয়া নদীতে উজানের ঢলে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। নদীটির নিয়ন্ত্রণ বাঁধে পীরগঞ্জ এলাকার কয়েকটি স্থানে ভেঙ্গে যাওয়ায় টুকুরিয়া ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রাম ভাঙ্গনে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। পানি কমার সাথে নদীটির পাড় ভেঙ্গে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার মহারাজপুর থেকে গতিপথ পরিবর্তন করে ১ কিমি উত্তরে সরে এসে পীরগঞ্জের টুকুরিয়া ইউনিয়নের বিছনা ও দক্ষিণ দূর্গাপুর গ্রামে চলে এসেছে। আবাদী জমি, বসতবাড়ী নদী গর্ভে চলে গেছে। ফলে শতাধিক পরিবার আশ্রয়হীন হয়েছে। 



আশ্রয়হীন রশিদা বেগম জানায়, বাপ-দাদার বাড়িঘর ভেঙ্গে নদীর তলদেশে পড়ে গেছে। এখন আমরা অন্যের বাড়িতে অবস্থান করছি। বিছনা গ্রামের রমিছা, শ্রী নিরব, মানিক, বকুল, রেজ্জাক জানায়, সারাজীবন খেটে ইটের বাড়ি করেছি। নদীটি আর ৪০/৫০ গজ ভাঙ্গলেই আমাদের বাড়িগুলো এবং পাকা রাস্তা পুরোটাই বিলীন হয়ে যাবে। 

টুকুরিয়া ইউপির চেয়ারম্যারম্যান আতাউর রহমান মন্ডল বলেন, নদী ভাঙ্গন রোধ করতে না পারলে সুজারকুঠি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সুজারকুঠি উচ্চ বিদ্যালয়সহ পুরো গ্রাম এবং দুধিয়াবড়ী, পারবোয়ালমারী গ্রাম নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে। নদীটি ভেঙ্গে ১ কিমি উত্তরে সরে এসে আমার ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রাম হুমকির মুখে পড়েছে। নদী ভাঙ্গনরোধে রংপুর পানি উন্নয়নবোর্ড, ইউএনও সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জানিয়েছি।

ব্রেকিংনিউজ/এসআর/আরএ

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2