শিরোনাম:

৫৫৭ বছর ধরে ছাদহীন মসজিদে নামাজ আদায়

ধর্ম ডেস্ক
১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বুধবার
প্রকাশিত: 10:27
৫৫৭ বছর ধরে ছাদহীন মসজিদে নামাজ আদায়

৫৫৭ বছর কম সময় নয়। আর এই শতাব্দির পর শতাব্দি ধরে ছাদহীন খোলা আকাশের নিচে একটি মসজিদে নামাজ আদায় করছেন মুসল্লিরা। গত কয়েকশ বছরেও মসজিদটির ছাদ নির্মাণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোনও সুনজরদারি লক্ষ্য করা যায়নি। 

তুরস্কের উত্তর-পূর্ব কার্ডগার গোমুশ খানা ও ট্রাভজোনের প্রাদেশিক সীমানায় অবস্থিত এমনই এক মসজিদের খোঁজ পাওয়া গেছে। 

ছাদহীন ওই মসজিদেই সেখানকার মুসল্লিরা নামাজ আদায় করছেন ৫৫৭ বছর ধরে। মসজিদটির উন্মুক্ত ছাদ দিয়ে কোমল বায়ু মুসল্লিদের শিহরিত করে। দুটি মিনার মসজিদটিকে একটি আধ্যাত্মিক রূপ দিয়েছে। মসজিদের মেঝে সবুজাভ ঘাসে আচ্ছাদিত। তবে মসজিদের চারপাশে সামান্য উঁচু করে ঘেরাও দেয়া।

সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৮০০ মিটার উঁচুতে অবস্থিত মসজিদটি। গ্রীষ্মকালে ভ্রমণপ্রেমীরা পরিবারসহ ট্র্যাভজোন, জার্সন, গোমশ খানা, কার্ডগা রিসোর্টে ভ্রমণে আসেন। ৫৫৭ বছরের প্রাচীন ও ঐতিহাসিক ওই মসজিদে নামাজ আদায় করতে বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে মুসল্লিদের আগমন ঘটে। 

মসজিদটির ছাদহীন অবস্থা প্রসঙ্গে মসজিদের ইমাম আকিফ ইয়াজজি বলেন, ‘গ্রীষ্মের মাসগুলিতে এই অঞ্চলের ‘দারুল ইফতা’ মসজিদের জন্য একজন সাময়িক ইমাম নিযুক্ত করে দেয়। মসজিদটির ঐতিহাসিক গুরুত্ব রয়েছে।’

কথিত আছে, ট্রাভজোন বিজয়ের সময় সুলতান আল-ফাতেহ তার সৈন্যদের নিয়ে এখানে শুক্রবার জুমার নামাজ আদায় করেন। সে সময় একটা স্বপ্ন দেখার পর সুলতান পাথরের সাহায্যে নামাজ আদায়কৃত জায়গার চারপাশে ঘেরাও করার আদেশ দিয়েছিলেন। যেন জায়গাটি নির্ধারিত ও আলাদা থাকে। 

এর পর গত ৫৫৭ বছর ধরে বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে মুসল্লিরা এখানে জুমার নামাজ আদায় করতে আসেন। মসজিদটির বিশ্ব মুসলিম সম্প্রদায়ের কাছে আকর্ষণের এক কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছে। 

ব্রেকিংনিউজ/এমআর

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2