শিরোনাম:

বাকৃবির উপাচার্য কার্যালয়ে হট্টগোল, উপ-উপাচার্য লাঞ্চিত

মো. আবদুল আউয়াল মিয়া শেখ, বাকৃবি করেসপন্ডেন্ট
১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮, সোমবার
প্রকাশিত: 5:35
বাকৃবির উপাচার্য কার্যালয়ে হট্টগোল, উপ-উপাচার্য লাঞ্চিত

ময়মনসিংহের বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) উপাচার্যের কার্যালয়ে অফিসার পরিষদের নেতারা হট্টগোল করেছেন। এ সময় উপাচার্য প্রফেসর ড. আলী আকবরের সামনেই উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. জসিমউদ্দিন খানকে মারতে তেড়ে আসেন অফিসার পরিষদের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা।

সোমবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে উপাচার্য কার্যালয়ে এই ঘটনা ঘটে। 

স্নাতক পরীক্ষার ভর্তি বিষয়ে পূর্ব নির্ধারিত সময় অনুযায়ী সাংবাদিকদের সাথে সংবাদ সম্মেলন করার সময় বলপূর্বক অফিসার পরিষদের সভাপতি আরিফ জাহাঙ্গীর ও সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ মাহবুবুর রহমানের নেতৃত্বে প্রায় ৩০ জন অফিসার তাদের বিভিন্ন দাবি নিয়ে উপস্থিত হন। প্রথমে তারা অফিসারদের বিভিন্ন দাবি নিয়ে উপাচার্যের সম্মুখে একটি কাগজ পেশ করেন। এরপর উপাচার্য, উপ-উপাচার্য, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার ও প্রক্টরের সাথে উচ্চবাক্যে কথা বলেন।

এসময় উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. জসিমউদ্দিন খান তাদের ফোরাম নিয়ে বিষয়টি বসতে বললে অফিসাররা তার সাথে উচ্চবাক্য করেন ও তাকে কথা বলার জন্য ‘সরি’ বলতে বলেন। বিশ্ববিদ্যালয় সম্প্রসারণ কেন্দ্রের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ আবুল বাসার আমজাদ, ডেপুটি লাইব্রেরিয়ান মো. খাইরুল আলম নান্নু, ক্রীড়া প্রশিক্ষণ বিভাগের মোহাম্মদ মোস্তাইন কবীর সোহেল উপ-উপাচার্যের দিকে তেড়ে যায় এবং গালিগালাজ করতে থাকে। পরে সেখানে নিজেদের মধ্যে অফিসার পরিষদের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা হট্টগোল করেন। এসময় অফিসাররা বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের হাত ধরে টানাটানি শুরু করে এবং কার্যালয় থেকে বের করে নিয়ে যায়।

এসময় উপস্থিত সাংবাদিকদের কাছ থেকে ক্যামেরা ছিনিয়ে নিতে উদ্যত হন ক্রীড়া প্রশিক্ষণ বিভাগের মোহাম্মদ মোস্তাই নকবীর সোহেল, মোহাম্মদ আবুল বাসার আমজাদ হোসেন, সংস্থাপন শাখার মোহাম্মদ আশিকুল আলম বাচ্চু, এনাটমি এন্ড হিস্টোলজি বিভাগের সেকশন অফিসার মো. মেহেদি হাসান রাসেল। এসময় অফিসার পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক মো. জিয়াউল হাসান টিটু ও আমজাদসহ বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী সাংবাদিকদের মারতে তেড়ে আসেন।

এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত ছাত্রবিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক.ড.মো. মোক্তার হোসেন, ভর্তি কমিটির আহ্বায়ক প্রফেসর ড. গিয়াসউদ্দিন আহমদ, প্রক্টর প্রফেসর ড. আতিকুর রহমান খোকন ও আইসিটি সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক ড. আওয়াল মিয়া উপস্থিত ছিলেন।

প্রফেসর ড. আলী আকবর বলেন,‘আমরা বিষয়টি অবহিত হয়েছি। মিটিং করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’  প্রক্টর প্রফেসর ড. আতিকুর রহমান খোকন বলেন, ‘এ বিষয়ে আলোচনা করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’

এ বিষয়ে অফিসার পরিষদের সভাপতি আরিফ জাহাঙ্গীর বলেন, ‘আমাদের ন্যায্য দাবি নিয়ে উপাচার্য কার্যালয়ে উপস্থিত হয়েছি। সাংবাদিকের সাথে এমন ব্যবহার করার জন্য অত্যন্ত দুঃখিত।’

ব্রেকিংনিউজ/এনএসএন






Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2