শিরোনাম:

২১,৮০০ কোটি টাকা ঋণ পাচ্ছে কৃষক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
২৫ জুলাই ২০১৮, বুধবার
প্রকাশিত: 6:05 আপডেট: 1:55
২১,৮০০ কোটি টাকা ঋণ পাচ্ছে কৃষক

কৃষি ও কৃষকবান্ধব নীতির সঙ্গে সঙ্গতি রেখে টেকসই উন্নয়নের নির্ধারিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে চলতি অর্থবছরের কৃষি ও পল্লী ঋণ নীতিমালা কর্মসূচি প্রণয়ন করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। যেখানে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ২১ হাজার ৮০০ কোটি টাকার কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণের ঘোষণা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

এবার ঋণের পরিমাণ গত অর্থবছরের তুলনায় ৬.৮ শতাংশ বেশি। বিগত বছরে ব্যাংকগুলোর লক্ষ্যমাত্রা ছিল ২০ হাজার ৪০০ কোটি টাকা।

বুধবার (২৫ জুলাই) বাংলাদেশ ব্যাংকের জাহাঙ্গীর আলম কনফারেন্স হলে এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস এম মনিরুজ্জামান এ নীতিমালা ঘোষণা করেন।

মনিরুজ্জামান বলেন, ‘এখনও বাংলাদেশের ৪০ শতাংশ মানুষ সরাসরি কৃষির সাথে জড়িত। পাশাপাশি ৮০ থেকে ৮৫ শতাংশ মানুষ পরোক্ষভাবে কৃষিক্ষেত্রের সাথে সম্পর্কিত। এ খাতের উন্নয়নে দেশের দারিদ্র্য বিমোচন, ক্ষুধামুক্তি ও সুস্বাস্থ্য অর্জনের সফলতা অর্জন করা সম্ভব।’

ডেপুটি গভর্নর বলেন, ‘এনজিও’র মাধ্যমে কৃষিঋণ বিতরণ বাড়লেও স্বল্প সুদে ঋণ পাচ্ছেন না কৃষক। কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে নেয়া ঋণ বর্গাচাষিদের কাছে পৌঁছাতে সুদের পরিমাণ প্রায় দ্বিগুণ হয়ে যায়।’

মনিরুজ্জামান জানান, ব্যাংকগুলোর নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রার বাইরে বাংলাদেশ সমবায় ব্যাংক, বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড ৯৬১ কোটি টাকা কষি ও পল্লী ঋণ বিতরণ করবে। ব্র্যাক বিতরণ করবে ৬০০ কোটি টাকা।

অগ্রাধিকার ভিত্তিতে লক্ষ্যমাত্রার ৬০ শতাংশ বিতরণ করতে হবে শস্য খাতে। ন্যূনতম ১০ শতাংশ মৎস্য খাতে এবং প্রাণিসম্পদ খাতে ১০ শতাংশ বিতরণ করতে হবে। এছাড়াও কষি যন্ত্রপাতি, দারিদ্র্য বিমোচন ও অন্যান্য খাতে বাকি অর্থ বিতরণ করতে হবে। 

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, লক্ষ্যমাত্রার ৫২ শতাংশ বিতরণ করবে বেসরকারি খাতের ব্যাংক। সরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংক বিতরণ করবে ৩০ শতাংশ, বিশেষায়িত ব্যাংক বিতরণ করবে ১৫ শতাংশ ও বিদেশি ব্যাংক বিতরণ করবে ৩ শতাংশ ঋণ।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক অশোক কুমার দে ও কৃষিঋণ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক মনোজ কান্তি বৈরাগী প্রমুখ।

ব্রেকিংনিউজ/এমআই/এমআর

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2