Ads-Top-1
Ads-Top-2

আবদুল্লাহ আল-মামুনের ৭৬তম জন্মবার্ষিকীর আয়োজন

বিনোদন ডেস্ক
১২ জুলাই ২০১৮, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: 11:37:00
আবদুল্লাহ আল-মামুনের ৭৬তম জন্মবার্ষিকীর আয়োজন

আগামীকাল ১৩ জুলাই বাংলাদেশের নবনাট্যচর্চার অন্যতম পথিকৃৎ নাট্যকার, নির্দেশক ও অভিনেতা আবদুল্লাহ আল-মামুনের ৭৬তম জন্মবার্ষিকী। বহুমাত্রিক এ শিল্পস্রষ্টার জন্মদিন উপলক্ষে তারই নাটকের দল ‘থিয়েটার’ আয়োজন করেছে স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠান ও নাটকের প্রদর্শনী। 

ওই দিন বিকাল ৪টায় শিল্পকলা একাডেমির সেমিনার কক্ষে তার সৃষ্টির বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনার সূত্রপাত করবেন নাট্যসারথি আতাউর রহমান, অভিনয়শিল্পী সারাহ বেগম কবরী ও সুবর্ণা মুস্তাফা। 

স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানটি সবার জন্য উন্মুক্ত। এরপর সন্ধ্যা ৭টায় জাতীয় নাট্যশালায় মঞ্চস্থ হবে ‘থিয়েটার’-এর নাটক ‘মেরাজ ফকিরের মা’। এ নাটকটি রচনা ও নির্দেশনা দিয়েছেন আবদুল্লাহ আল-মামুন।

আব্দুল্লাহ আল মামুন ১৯৪২ সালের ১৩ই জুলাই জামালপুরের আমড়া পাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন।</strong> তাঁর পিতা অধ্যক্ষ আব্দুল কুদ্দুস এবং মাতা ফাতেমা খাতুন। তিনি ১৯৬৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাস বিষয়ে এমএ পাস করেন। আব্দুল্লাহ আল মামুন তার পেশাগত জীবন শুরু করেন দৈনিক সংবাদ-এ। এর পর ১৯৬৬-১৯৯১ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রযোজক ও পরিচালকসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন আব্দুল্লাহ আল মামুন। ১৯৯২ সাল থেকে ২০০১ পর্যন্ত তিনি জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটউট-এর মহাপরিচালক এবং ২০০১ সালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর মহ্পরিচালক ছিলেন। 

বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতিক প্রতিনিধি হিসেবে জাপান, ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, পশ্চিম র্জামানি, চীন, সিঙ্গাপুর সহ পৃথিবীর নানা দেশ ভ্রমন করেছেন আবদুল্লাহ আল মামুন।

তার প্রকাশিত জনপ্রিয় নাটক হলো সুবচন নির্বাসনে (১৯৭৪), এখন দুঃসময় (১৯৭৫), এবার ধরা দাও (১৯৭৭), শাহজাদীর কালো নেকাব (১৯৭৮), চারদিকে যুদ্ধ (১৯৮৩), এখনও ক্রীতদাস (১৯৮৪), কোকিলারা (১৯৯০), মেরাজ ফকিরের মা (১৯৯৭)। তার লিখিত উপন্যাস গুলো হচ্ছে মানব তোমার সারা জীবন (১৯৮৮), হায় পারবতী (১৯৯১), খলনায়ক (১৯৯৭)।

ব্রেকিংনিউজ/অমৃ

Ads-Sidebar-3
Ads-Sidebar-3
Ads-Sidebar-3
Ads-Top-1
Ads-Top-2