Ads-Top-1
Ads-Top-2

হ্যাকিংয়েই বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরি: সিআইডি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
৭ জুলাই ২০১৮, শনিবার
প্রকাশিত: 08:27:00 আপডেট: 08:29:00
হ্যাকিংয়েই বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরি: সিআইডি

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনায় পুলিশের অপরাধ বিভাগের (সিআইডি) ফরেনসিক প্রতিবেদন ফিলিপাইনের আদালতে জমা দেয়া হয়েছে। হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে রিজার্ভ চুরি হয়েছিল বলে তাদের প্রতিবেদনে দাবি করছে সিআইডি। 

গত ৫ জুলাই সিআইডির দুই কর্মকর্তা ফিলিপাইনের আদালতে প্রতিবেদনটি জমা দেন। 

সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার ও রিজাভ চুরি মামলার তদারক কর্মকর্তা মোল্লা নজরুল ইসলাম ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘ফিলিপাইন এন্ট্রি মানি লন্ডারিং কমিশন একটা মামলা করেছিল আরসিসি ব্যাংক ও তার কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে তাদের দেশের আদালতে। সেই বিষয়ে আমাদের তদন্তকারী কর্মকর্তা ও আইটি বিশেষজ্ঞকে ডেকেছিল এটা হ্যাক হয়েছিল কিনা জানতে। আমাদের আইটি বিশেষজ্ঞ বলেছে হ্যা এটা হ্যাকিং হয়েছিল। আমাদের তদন্তকারী কর্মকর্তাকে (সিআইডি’র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রায়হান উদ্দিন খান) তারা জিজ্ঞাসা করেছিল এর সাথে কারা কারা জড়িত। সেখানে দেখা গেছে আমাদের তদন্ত ও তাদের তদন্তে একই নাম রয়েছে।’ 

আমাদের দেশের কারও সম্পৃক্ততা পাওয়া গেছে কিনা এমন প্রশ্নে এই কর্মকর্তা বলেন, ‘এটা তো এখনও তদন্তাধীন। তাই এই মুহূর্তে কিছু বলতে চাচ্ছি না।’ 

তদন্তের কারণে নাকি রাজনৈতিক কোনও চাপে মুখ খুলছেন না- এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘তদন্তের স্বার্থে এখন কিছু বলা সম্ভব হচ্ছে না। এখনও আমাদের তদন্ত শেষ হয়নি, তদন্ত শেষ হলে সব জানা যাবে।’

২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে ১০ কোটি ১০ লাখ মার্কির ডলার চুরি হয়ে যায়। এ ঘটনার প্রায় দুই বছর পর তদন্ত শেষে অভ্যন্তরীণ ফরেনসিক প্রতিবেদন দিল সিআইডি। 

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা যায়, যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক থেকে সুইফট কোডের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকের এই অর্থ চুরি করে নেয়া হয়। চুরি হওয়া এই অর্থের মধ্যে ২ কোটি ডলার শ্রীলঙ্কা এবং বাকি ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার চলে যায় ফিলিপাইনের জুয়ার আসরে। 

দেশের অভ্যন্তরের কোনো একটি চক্রের সহায়তায় হ্যাকার গ্রুপ রিজার্ভের অর্থ পাচার করেছে বলে আগেই ধারণা করেছিলেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

ফিলিপাইনে পাচার হওয়া অর্থের মধ্যে দেড় কোটি ডলার বাংলাদেশে ফেরত এসেছে। বাকি টাকা উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে সরকার।

ব্রেকিংনিউজ/এমআই/টিটি/এমআর

Ads-Sidebar-3
Ads-Sidebar-3
Ads-Sidebar-3
Ads-Top-1
Ads-Top-2