Ads-Top-1
Ads-Top-2

এ বাজেট সাধারণ মানুষের জন্য হয়নি: ড. সালেহউদ্দিন

স্টাফ ক‌রেসপ‌ন্ডেন্ট
২৫ জুন ২০১৮, সোমবার
প্রকাশিত: 01:56:00
এ বাজেট সাধারণ মানুষের জন্য হয়নি: ড. সালেহউদ্দিন
ফাইল ছবি

নতুন অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট সাধারণ মানুষের জন্য হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন অর্থনীতিবিদ ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ।

সোমবার (২৫ জুন) সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) আয়োজিত ‘প্রস্তাবিত বাজেট ২০১৮-২০১৯: নাগরিক ভাবনা’ শীর্ষক এক গোলটেবিল আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, এ বাজেট সাধারণ মানুষের জন্য হয়নি। অল্প কিছু শ্রেণিকে তুষ্ট করার জন্য বাজেটটা হয়েছে।

তিনি বলেন, সাধারণ মানুষ মনে করে এটি একটা বড় বাজেট। কিন্তু তারা তো সব কিছু বুঝে না। একটি বিশেষ শ্রেণির মানুষ এ থেকে বেশি সুবিধা পাবে। তাছাড়া বাজেটে এনালাইটিকাল কোনো বর্ণনা নেই।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক এই গভর্নর বলেন, আমাদের বড় বড় মেগা প্রকল্পগুলোর প্রতি দৃষ্টি ও মনোযোগ এত বেশি যে এতে মাঝারি বা ছোট প্রকল্পের আওতায় থাকা লোকগুলো কিন্তু সাফার হচ্ছে। মেগারপ্রকল্পগুলো ভবিষ্যতে কাজে লাগবে, কিন্তু এসব চিন্তা করলে জনকল্যাণমুখী বাজেট এটাকে বলা যাবে না। 

প্রকল্পে দুর্নীতির চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, বড়বড় প্রকল্প থেকে দুর্নীতি হচ্ছে। এখন কিন্তু দুর্নীতি ৫০০ বা হাজার টাকায় নয়, এখন দুর্নীতি হচ্ছে হাজার কোটি টাকায়। 

এই অর্থনীতিবিদ আরও বলেন, বাজেট বাস্তবায়ন করতে হলে সক্ষমতা দরকার। সেই সক্ষমতা তো এখনো আমাদের নেই। সরকারি, বেসরকারি ও রেগুলেটরিভিত্তিক প্রতিষ্ঠানগুলোর দক্ষতা বৃদ্ধি দরকার। কিন্তু তা হয়নি। এবারের বাজেটটা তাই আলাদাভাবে চমকের কোনো বাজেট নয়। আরা ভেবেছিলাম উন্নয়নের বাজেট হবে এবং উন্নয়নটা হবে টেকসই। সেটা দেখছি না।

সালেহউদ্দিন আরও বলেন, ‘শিক্ষাখাতে যে বাজেট রাখা হয়েছে তার মধ্যে সব চেয়ে বেশি বাজেট রাখা হয়েছে শিক্ষকদের বেতন-ভাতায়। কিন্তু শিক্ষার গুনগত মান বাড়াতে বরাদ্দ কম’।

বাজেটে সড়ক সংস্কারে বরাদ্দের বিষয়ে তিনি বলেন, মাত্র এক বছরের মাথায় সড়ক উন্নয়নে ৪০০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। টেকসই উন্নয়ন যদি হয় তাহলে এক বছরের মাথায় এই বরাদ্দ কেন?

অর্থনীতিবিদ আলী ইমাম মজুমদার বলেন, এ দেশে ধনী ও দরিদ্রের মধ্যে ব্যবধান অনেক বেড়েছে। মধ্যবৃত্তরা নিন্মবৃত্ত হচ্ছে। দেশে চাহিদা অনেক বাড়ছে। কৃষিখাতে ভর্তুকি আরও বাড়ানো দরকার। 

গণসংহতি আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সমন্বায়ক জোনায়েদ সাকি বলেন, গরিব মানুষের প্রতি কর আরোপ করে দেওয়া হচ্ছে। আর প্রত্যক্ষ করের মাধ্যমে উচ্চ পর্যায়ের লোকদের খুশি করা। বড়বড় স্থাপনা বা কিছু প্রকল্প বাস্তবায়ন উন্নয়ন নয়, উন্নয়ন হচ্ছে জনগত সেই স্থাপনা বা প্রকল্প থেকে কতটা সুবিধা পাচ্ছে। একটি বিশেষ শেণিকে সুবিধা দেওয়ার জন্যই এই বাজেট। যা আগামী নির্বাচনে সুবিধা দিবে। 

সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদারের সঞ্চালনায় বৈঠকে সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এম হাফিজ উদ্দিন খান, অর্থনীতিবিদ সৈয়দ আবু নাসের বখতিয়ার আহমেদ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

ব্রে‌কিং‌নিউজ/এএইচএস/এনকে

Ads-Sidebar-3
Ads-Sidebar-3
Ads-Sidebar-3
Ads-Top-1
Ads-Top-2