Ads-Top-1
Ads-Top-2

খালেদার সুচিকিৎসায় আইজি প্রিজনকে নির্দেশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
১০ জুন ২০১৮, রবিবার
প্রকাশিত: 03:52:00 আপডেট: 10:02:00

দুর্নীতি মামলায় কারান্তরীণ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতা ও তাঁর উন্নত চিকিৎসার ব্যাপারে বিএনপির অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, ‘খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার বিষয়ে সরকারের আন্তরিকতার কোনও ঘাটতি নেই। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে আইজি প্রিজনকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।’

রবিবার (১০ জুন) দুপুরে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য বিএনপি চেয়ারপারসনকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে নেওয়া হচ্ছে।’ কখন নেওয়া হচ্ছে- জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ওনার ব্যক্তিগত ও কারা চিকিৎসকেরা কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষার কথা জানিয়েছেন। আমরা ব্যবস্থা করেছি। তাকে বিএসএমএমইউতে পরীক্ষা করানো হবে।’

তিনি বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া বিএনপি চেয়ারপারসন এবং সাবেক প্রধানমন্ত্রী। এসব বিষয় মাথায় রেখেই তিনি সব ধরনের সুযোগ সুবিধা পাবেন এবং পাচ্ছেনও। তারপরও যেন আরও দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হয় সেজন্য আইজি প্রিজনকে এ নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।’

খালেদা জিয়াকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করানোর ব্যাপারে তাঁর ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও বিএনপি নেতাদের দাবি প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে অনেক বড়-বড় চিকিৎসক ও গবেষকরা রয়েছেন। এখানকার চিকিৎসা ব্যবস্থা অনেক উন্নত। এছাড়া উনার ব্যক্তিগত চিকিৎসকেরাও রয়েছেন। সুতরাং এখানেই তাঁর চিকিৎসা হবে।’

এর আগে গতকাল শনিবার (৯ জুন) বিকেলে পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে তাঁর ব্যক্তিগত চারজন চিকিৎসক সাক্ষাত করে বেরিয়ে আসার সময় উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ‘মাইল্ড স্ট্রোক’ হয়েছে। গত মঙ্গলবার খালেদা জিয়া হঠাৎ পড়ে গিয়েছিলেন। এতে তাঁর একটি ‘মাইন্ড স্ট্রোক’ হওয়ায় তিনি ওই সময়টার কথা কিছু মনে করতে পারছেন না।

এসময় খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ঢাকা মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক এফ এম সিদ্দিকী সাংবাদিকদের বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসনের চিকিৎসা নিয়ে চার পৃষ্ঠার একটি সুপারিশমালা আমরা কারা কর্তৃপক্ষকে দিয়েছি। বেগম জিয়ার কথায় এখন কিছুটা জড়তা আছে, তবে কমিউনিকেশন করতে পারছেন।’

এদিকে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করে বলেছেন, ‘খালেদা জিয়া গত মঙ্গলবার দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় মাথা ঘুরে পড়ে গিয়েছিলেন। তিন সপ্তাহ ধরে তিনি ভীষণ জ্বরে ভুগছেন।’

এমন অবস্থায় ৭৩ বছর বয়সী দলীয় চেয়ারপারসনের শারীরিক অবস্থা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে তাকে বেসরকারি ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তির দাবি জানিয়ে আসছে বিএনপি।

তবে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, চিকিৎসকদের পরামর্শ মোতাবেক কারাগারে খালেদা জিয়াকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তিনি সুস্থ আছেন। যদিও ক্ষমতাসীনদের এমন দাবি বরাবরই ‘মিথ্যা-বানোয়াট’ বলে আসছে বিএনপি নেতারা।

এর আগে গত ১ এপ্রিল খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গঠিত বিশেষ মেডিকেল বোর্ড কারাগারে গিয়ে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে। সবমেশ গত ৭ এপ্রিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে ওইদিনই তাকে কারাগারে ফিরিয়ে নেয়া হয়।

উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের সাজা হওয়ার পর গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে পুরান ঢাকার পরিত্যাক্ত কারাগারে আছেন বিএনপি চেয়ারপারসন। খালেদা জিয়ার কক্ষটিতে কোনও এয়ার কণ্ডিশনার নেই। কেননা, ২০১৬ সালের জুলাইয়ে কেন্দ্রীয় কারাগার কেরানীগঞ্জে স্থানান্তর হওয়ার পর এই ভবনটি ব্যবহৃত হচ্ছিলো না। তবে তাঁর রুমে ফ্যান, সোফা চেয়ার, টেবিল এবং একটি সেমি-ডাবল বিছানা রয়েছে। টেলিভিশন ও ফ্রিজের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এছাড়াও, এখানে রান্না করার ব্যবস্থাও রয়েছে। রুমটির সঙ্গে লাগোয়া রয়েছে বাথরুম। খালেদা জিয়ার সার্বক্ষণিক নিরাপত্তার জন্যে ২৫ জন নিরাপত্তারক্ষী নিয়োজিত রয়েছে।

ব্রেকিংনিউজ/টিটি/এমআর

Ads-Sidebar-3
Ads-Sidebar-3
সর্বাধিক পঠিত
Ads-Sidebar-3
সর্বশেষ খবর
Ads-Sidebar-3
Ads-Top-1
Ads-Top-2