শিরোনাম:

ছেলেদের ফ্যাশনের জরুরি টিপস

নিউজ ডেস্ক
৬ জুন ২০১৮, বুধবার
প্রকাশিত: 9:46
ছেলেদের ফ্যাশনের জরুরি টিপস

মনে করা হয়, ফ্যাশনের জগৎটা কেবলমাত্র মেয়েদের জন্যেই। শুরুর দিকে শুধুমাত্র মেয়েরাই ফ্যাশনের ব্যাপারে সচেতন ছিল। সময়ের সাথে সাথে সবকিছুই বদলায়। এখনকার দিনে ছেলেরাও মেয়েদের সাথে পাল্লা দিয়ে ফ্যাশনের ব্যাপারে সচেতন হয়ে উঠছে এবং এগিয়ে চলছে সামনের দিকে।
 
যদি আমরা মেয়েদের ফ্যাশন নিয়ে কথা বলি তাহলে আমরা মেয়েদের মেকআপ, নতুন পোশাক, বিভিন্ন ডিজাইনের জুতো, নতুন ধরনের চুলের স্টাইলের কথা বলে থাকি। বর্তমান সময়ে মেকআপের বিষয়টি বাদ দিয়ে আর সব ক্ষেত্রেই ছেলেদের ফ্যাশনের বিষয়টি সামনে চলে আসছে। চুলের স্টাইল, পোশাক, জুতো, রোদচশমা ইত্যাদি সব ব্যাপারেই ছেলেরা এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি সচেতন। ছেলেদের ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রিও এখন সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।
 
তবে ফ্যাশনসচেতন ছেলে বলতে এটা বুঝায় না যে তারা ব্র্যান্ডের পোশাক ছাড়া কাপড় এবং ব্র্যান্ডের এক্সেসরিজ বাদে কিছু ব্যবহার করতে চান না। একটু বুদ্ধি খাটিয়ে হাতের কাছে পাওয়া নানা জিনিস এবং কম খরচেও অনেক ফ্যাশনেবল হয়ে ওঠা যায়। তাই পয়সা খরচ করে নয় মাথা খাটিয়ে ফ্যাশনেবল হয়ে উঠুন। আজকে চলুন দেখে নেয়া যাক ছেলেদের ফ্যাশনের জরুরি কিছু বিষয়:
 
পোশাকআশাক দামি নয়, পরিপাটি হওয়া প্রয়োজন। আপনি অনেক দাম দিয়ে পোশাক কিনেছেন ঠিকই কিন্তু যত্নের অভাবে তা নষ্ট হয়ে গিয়েছে অথবা রঙ বেরঙ হয়ে গিয়েছে এমন পোশাক দিয়ে তো কোনো কাজ নেই। পোশাক একটু কম দামি হলেও যদি পরিপাটি করে রাখেন তবে আপনাকে দেখতে বেসশ ভালো লাগবে।
 
চুলের কাটের ব্যাপারে সতর্ক হোন। আপনাকে যে চুলের কাটে মানায় সেই ধরনের কাট দিন চুলে একটু পয়সা খরচ করে হলেও। একটি মানানসই চুলের কাট আপনাকে অনেকাংশে ফ্যাশনেবল করে তুলবে।
 
চুলের পাশাপাশি দাঁড়ির দিকেও নজর করবেন। অনেককে একেবারে ক্লিন শেভে ভালো দেখালেও প্রত্যেককে ভালো দেখায় না। আপনার মুখে যদি দাঁড়ি গোঁফ মানায় তবে সেই অনুযায়ী দাঁড়ি গোঁফ রাখুন। এতে করে আপনি হয়ে উঠতে পারেন ফ্যাশনেবল।
 
মেয়েদের তুলনায় ছেলেরা একটু বেশিই ঘেমে থাকেন। এবং ছেলেরা যেহেতু বেশিরভাগ সময় ঘরের বাইরেই কাটান তাই অবশ্যই লক্ষ্য রাখবেন নিজের পারফিউমের দিকে। বাসা থেকে বেরুনোর সময় বডি স্প্রে বা বডি রোল অন অথবা পারফিউম লাগাতে ভুলবেন না। তবে অতিরিক্ত পারফিউম ব্যবহার করবেন না একেবারেই।
 
নানা এক্সেসরিজ যেমন ঘড়ি, সানগ্লাস, রুমাল ইত্যাদি ব্যবহার করুন। সাথে রাখুন স্টাইলিশ মানিব্যাগ। যারা কর্মজীবী মানুষ তারা সাথে রাখতে পারেন ভালো, মানানসই এবং সুন্দর ডিজাইনের সাইডব্যাগ (অফিসব্যাগ)।
 
জুতোর দিকে অবশ্যই নজর দিন। কোথায় বলে একজন মানুষকে চেনা যায় তার জুতো দিয়ে। জুতো সব সময় পরিষ্কার রাখুন। অপরিষ্কার জুতো পরবেন না। জুতো মলিন হয়ে এলে ভালো করে পলিশ করে নিন।
 
একই স্টাইল বেশিদিন ধারণ করবেন না। মাঝে মাঝে স্টাইল পরিবর্তন করুন। পোশাক আশাকের ধরনে, চুলের কাটে এবং দাঁড়ি গোঁফের কাটে পরিবর্তন আনুন মাঝে মাঝেই। এতে করে আপনাকে অনেকটাই ফ্যাশনেবল লাগবে এবং আপনি নিজেও বুঝতে পারবেন আপনাকে কোন পোশাকে, কোন ছাঁটের চুলে ভালো লাগে।

ব্রেকিংনিউজ/জিসা
 

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2