শিরোনাম:

‘ঘৃণার হিজাবেই’ মুগ্ধ খ্রিস্টান মা-মেয়ে

হৃদয় আজিজ
২৯ মে ২০১৮, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: 5:21 আপডেট: 6:20
‘ঘৃণার হিজাবেই’ মুগ্ধ খ্রিস্টান মা-মেয়ে

সারা বিশ্বেই যখন মুসলিম মেয়েদের ঐতিহ্য হিজাব নিয়ে কটূক্তি করা হচ্ছে। এটাকে সন্ত্রাসবাদের পোশাক বলে চিহ্নিত করার চেষ্টা হচ্ছে। এমনকি কিছু কিছু প্রভাবশালী মিডিয়াও এর পেছনে লেগেছে। সে সময় মুসলিম নারীদের ও রোজাদারদের সম্মানে পুরো রমজানই হিজাব পরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ব্রিটিশ খ্রিস্টান মে ও মেয়ে।

১১ বছর বয়সী গ্রেস ললোয়েড কাতারের রাজধানী দোহাস্থ গলফ ইংলিশ স্কুলের শিক্ষার্থী। গ্রেস প্রথম রমজানে যখন স্কুলে গেলো তখন সব বন্ধু তার দিকে অবাকদৃষ্টিতে তাকিয়েছিল এবং তাকে সাধুবাদ জানিয়েছিল। কারণ, পশ্চিমা পোশাকেই যে মেয়েকে সবসময় দেখা যায়, তার আজ এই পরিবর্তন? স্কুলে নীল ইউনিফর্মের সঙ্গে মাথায় কালো হিজাব পরেছিল সেদিন।

প্রথম দিকে সে লজ্জা পেলেও তার মায়ের অনুপ্রেরণায় হিজাবকে স্বাভাবিকভাবে নিয়েছে। মা মেয়ে দুজনেই পন করেছে যে প্রতি রমজানে হিজাব পরবে।

এক সময় তার মা ঘৃণাভরে এই হিজাব ত্যাগ করেছে। হিজাবী মুসলিম নারীদের পেছনে লেগেছে। আজ তাদের অনেক পরিবর্তন।

গ্রেস বলছিল, ‘প্রথম দিকে একটু খারাপ লাগলেও, এখন নিজেকে খুবই সাহসী ও আত্মবিশ্বাসী মনে হচ্ছে।’

ইতোমধ্যে মা ইল্লি ললোয়েড ও মেয়ে গ্রেস ললোয়েড ‘বিশ্ব হিজাব দিবস’ পালনকারী সংস্থার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে। তারা এই অলাভজনক সংস্থায় অর্থ সহায়তা করছে। এবং সব নারীদেরকেই এই সংস্থার সংঙ্গে যুক্ত হওয়ার আহ্বানওজানিয়েছে।

আল জাজিরাকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে গ্রেস বলেছিল, ‘আমি এখন কালো হিজাব পরছি, আমার খুবই ভালোলাগছে এরপর আমি আরও কয়েক ধরণের হিজাব কিনবো। তাছাড়া, আমার বান্ধবীরাও হিজাব পরে।’

হিজাব শুধু মুসলিম নয় অন্য ধর্মের নারীদেরও পরা উচিত বলেও মনে করে কিশোরী গ্রেস।

ব্রেকিংনিউজ/এইচএ

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2