Ads-Top-1
Ads-Top-2

রমজানে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি, বিপাকে রাবি শিক্ষার্থীরা

সাঈদ সজল, রাবি প্রতিনিধি
২৪ মে ২০১৮, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: 07:28:00 আপডেট: 07:29:00

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ক্যাম্পাস বন্ধ হয় ১৭ মে। তারপরও অনেকে শিক্ষার্থীই পড়াশোনা, টিউশনি, এ্যাসাইনমেন্ট ইত্যাদি কাজে ক্যাম্পাসে অবস্থান করছে। রোজা শুরুর আগেই প্রায় সবকটি হলের ডাইনিং বন্ধ হয়ে যায়।

এই অবস্থায় বাজারে দ্রব্যমূল্যের বৃদ্ধিতে বিপাকে পড়েছে আবাসিক হলে অবস্থান করা শিক্ষার্থীরা। রমজানের শুরুতেই নিত্যপণ্যের দাম অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানান অধিকাংশ শিক্ষার্থীরা। এছাড়া ক্যাম্পাসের পার্শ্ববর্তী হোটেলে নিম্নমানের খাবার খেয়ে রোজা ও পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়া নিয়ে উভয়সংকটের মুখোমুখি রাবি শিক্ষার্থীরা।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞানের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, রমজানের আগে যে আলু ১০টাকা ছিল সে আলু এখন ২০টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ব্রয়লার মুরগির দাম ১৩০ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ১৪৫ টাকা।

ক্যাম্পাস সংলগ্ন বিনোদপুর বাজার ঘুরে দেখা গেছে, সাদা চিনি বিক্রি হচ্ছে ৭৩ টাকায় যা রোজার আগে দাম ছিল ৬৫ টাকা, সয়াবিন তেল বিক্রয় হচ্ছে ৮৮ টাকায় যা আগে ছিল ৮২ টাকা। সবজির বাজারও চড়া। বেগুন ৫০টাকা, ঢেড়স ৪০ টাকা, শসা ৫০ টাকা, করলা ৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

নাট্যকলার মাস্টার্সের শিক্ষার্থী স্বপ্নীল সমাপ্তী বলেন, ‘শুধুমাত্র রমজান আসায় দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় আমাদের জীবনযাত্রার ব্যয় অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে গেছে। দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে না পারা সরকারের একটি বড় ব্যর্থতা।’

সবজি বিক্রেতা রাসেল জানান, রমজানের শুরুতেই পণ্যের দাম বৃদ্ধি পেয়েছিল। সেটা এখনও রয়ে গেছে। বর্ধিত মূল্যের কারণ রাসেল জানায়, এসবে তাদের হাত নেই। উপরমহলের লোক সব জানে।

ব্রেকিংনিউজ/এসএএফ

Ads-Sidebar-3
Ads-Sidebar-3
সর্বাধিক পঠিত
Ads-Sidebar-3
সর্বশেষ খবর
Ads-Sidebar-3
Ads-Top-1
Ads-Top-2