শিরোনাম:

পঞ্চগড়ে লিচুর বাম্পার ফলন

কৃষি ডেস্ক
১৬ মে ২০১৮, বুধবার
প্রকাশিত: 4:41
পঞ্চগড়ে লিচুর বাম্পার ফলন

জেলায় এবার লিচুর বাম্পার ফলন হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে চাষিরা গতবারের চেয়ে এবার অধিক লাভের আশা করছেন। তারা এখন বাগান পরিচর্যা করে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

প্রতি বছর এ উপজেলার লিচু স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পাঠানো হয়ে থাকে। জেলার বিভিন্ন এলাকা জুড়ে লিচুর বাগান রয়েছে। এ উপজেলার লিচু অনেকটা সু-স্বাদু, রসালো ও উন্নত মানের। 

এ এলাকার লিচুর গুণগত মান ভালো হওয়ায় চাহিদা রয়েছে দেশ জুড়ে। জেলার সাতখামার, চন্দনবাড়ি, সাকোয়া, মাড়েয়া, ময়দানদিঘী, বড়শশী কালিয়াগঞ্জ, ঝলইশালশিরি, পাঁচপীরসহ আশপাশের গ্রামে দেশের উৎকৃষ্টমানের লিচু উৎপাদন হয়ে থাকে। এছাড়া উপজেলার প্রায় বাসা-বাড়ির পতিত জমিতে ও আশপাশের জমিতে লিচুর গাছ রোপণ করে থাকে বাগান প্রেমীরা।

জেলায় প্রায় ১ হাজার ২০০ হেক্টর জমিতে ছোট-বড় মিলে প্রায় ১ হাজার ৫৫০ এর অধিক লিচুর বাগান রয়েছে। বেদানা, চায়না-থ্রি, বোম্বাই, মাদ্রাজী, চায়না-টু ও কাঁঠালি জাতের লিচু এবং সূর্যাপুরী আম, হারিভাঙ্গা, কলম, লেঙ্গরা, আমরুপালী ও ক্ষীরসা সহ বিভিন্ন আমের ফলন ভালো হয় এ অঞ্চলে। 

পঞ্চগড় জেলার সবচেয়ে বেশি লিচুর বাম্পার ফলন হওয়ায় এখানকার মানুষ এবার খুবই খুশি। কিন্তুএ জেলায় লিচু গবেষণাগার এবং সংরক্ষণের জন্য কোন হিমাগার না থাকায় প্রতি বছর লিচু পঁচে নষ্ট হয়। ফলে স্বল্প সময়ের এ মৌসুমী ফল সংরক্ষণের অভাবে বাগান মালিকদের কাছ থেকে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে স্বল্প মূল্যে ক্রয় করেন সুবিধাভোগী ব্যবসায়ীরা। ফলে লিচু চাষিরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। তাই পঞ্চগড় জেলায় একটি লিচু সংরক্ষণের জন্য হিমাগার স্থাপনের দাবি জানিয়েছে এ এলাকার চাষিরা।

ব্রেকিংনিউজ/ এমজি

Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Sidebar-1
Ads-Bottom-1
Ads-Bottom-2