শিরোনাম:

চার বছর পর রাবি ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি
প্রকাশিত : সোমবার, ১৯ জুন ২০১৭, ১০:৩৮
অ-অ+
চার বছর পর রাবি ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি
ফাইল ছবি

রাজশাহী: দীর্ঘ চার বছর পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে ছাত্রলীগের রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শাখায়। 

সোমবার (১৯ জুন) বিকেলে ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে ১৫১ সদস্য বিশিষ্ট এ পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। 

তবে পূর্ণাঙ্গ এ কমিটিতে বিতর্কিতরাও জায়গা পেয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। পদ পেয়েছেন অছাত্র, ছাত্রদল, বহিষ্কৃত, অনুপ্রবেশকারীরাও। আবার অনেক ত্যাগী কর্মী হয়েও কমিটিতে স্থান পায়নি। 

পদবঞ্চিত কর্মীদের অভিযোগ, সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের কাছের মানুষরাই কেবল এ কমিটিতে স্থান পেয়েছে। পড়াশোনা শেষ হয়েছে, পূর্বে ছাত্রদলের কর্মী ছিল, আবার ছাত্রলীগ থেকে বিভিন্ন সময়ে বহিষ্কৃতরা এ কমিটিতে পদ পেয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয় রাজনীতিতে নিষ্ক্রিয় থেকেও সভাপতি-সম্পাদকের কাছের মানুষ হওয়ায় অনেকে পদ পেয়েছেন। এক্ষেত্রে ত্যাগী কর্মীরা বঞ্চিত হয়েছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ছাত্রলীগের রাবি শাখার এক সিনিয়র কর্মী ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘এখানে ভর্তির প্রথম থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত রয়েছি। রাবি ছাত্রলীগের প্রতিটি কর্মসূচিতে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেছি। এরপরও পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে কোন পদ পেলাম না। কারণ হিসেবে তিনি আগের কমিটির নেতাদের কাছের মানুষ ও বর্তমান কমিটির নেতাদের বিরাগভাজন হওয়াকে দায়ী করছেন।’

আরেক কর্মী ক্ষোভ প্রকাশ করে ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘এ কমিটি ছাত্রলীগের হয়নি, ‘ভাইলীগ’ এর উপর নির্ভর করে এই কমিটি হয়েছে। যারা মাঠে ছিল, সময় ও শ্রম দিয়েছে তাদেরকে মূল্যায়ন করা হয়নি। সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের যারা কাছেই মানুষ তারাই কেবল পদ পেয়েছে। এটা খুবই দুঃখজনক।’

সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক জানান, ১৫১ সদস্যের এ কমিটিতে সহ-সভাপতি পদে ৪২ জন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে ১০ জন, সাংগঠনিক সম্পাদক পদে ১০ জন, প্রচার সম্পাদক, দফতর সম্পাদকসহ বিভিন্ন সম্পাদক পদে ৩২ জন ও উপ-সম্পাদক পদে ৩২ জন, সহ-সম্পাদক পদে ১৩ জন এবং সদস্য হিসেবে ১২ জনকে পদ দেয়া হয়েছে।

এদিকে, বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু ফেসবুকে তার নিজ একাউন্টে পূর্ণাঙ্গ কমিটির যে তালিকা আপলোড করেছেন সেখানে ১১০ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির তালিকা প্রদান করা হয়েছে। এতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদসহ সহ-সভাপতি পদে ৪২ জন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে ১০ জন, সাংগঠনিক সম্পাদক পদে ১০ জন, বিভিন্ন সম্পাদক ও উপ সম্পাদক পদে ১৩ জন, সহ-সম্পাদক পদে ২৩ জন এবং সদস্য হিসেবে ১০ জনের নাম উল্লেখ রয়েছে। 

এ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। গঠণতন্ত্র অনুযায়ী ১৫১ সদস্যের বেশি হয়ে যাওয়ায় তাদের নাম প্রকাশ করা হয়নি বলে ছাত্রলীগ সূত্র জানায়।

বিতর্কিতদের বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রলীগের রাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, ‘অনেকবার যাচাই-বাছাই করে পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদনের জন্য কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কাছে পাঠিয়েছিলাম। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগে খোঁজখবর নিয়ে বিতর্কিতদের বাদ দিয়ে তবেই কমিটির অনুমোদন দিয়েছে। এখানে অছাত্র বা ছাত্রদলের অনুপ্রবেশকারীদের থাকার সুযোগ নেই।

ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি/ এসডিএম/ এআর