শিরোনাম:

‘অর্থমন্ত্রী ব্রিটিশ-আমেরিকান টোব্যাকোর স্বার্থ রক্ষা করেছেন’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট,
ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি
প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১৩ জুন ২০১৭, ০২:৪৭
অ-অ+
‘অর্থমন্ত্রী ব্রিটিশ-আমেরিকান টোব্যাকোর স্বার্থ রক্ষা করেছেন’

ঢাকা: অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত দেশীয় তামাক চাষীদের স্বার্থ রক্ষা না করে বৃটিশ আমেরিকান টোব্যাকো কোম্পানির স্বার্থ রক্ষা করেছেন বলে অভিযোগ করেছে বৃহত্তর রংপুর তামাক চাষী ও ব্যবসায়ী সমিতি।

মঙ্গলবার (১৩ জুন) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানায় সংগঠনটি। 

সংবাদ সম্মেলনে আয়োজক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মাসুম ফকির বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০৪০ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে তামাকমুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছেন। তার এই ঘোষণাকে আমরাও স্বাগত জানাই। কিন্তু অর্থমন্ত্রী ধুমপানমুক্ত করার নামে যদি শুধুমাত্র বিড়ির শুল্ক বাড়িয়ে দিয়ে সিগারেটের পক্ষে কাজ করবেন সেটা তো হতে পারে না। তিনি জনগণের অর্থমন্ত্রী না বহুজাতিক কোম্পানির অর্থমন্ত্রী?’ 

তিনি বলেন, ‘২০১৭-২০১৮ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বিড়ির ওপর অযৌক্তিকভাবে ১১০ শতাংশ মূল্যস্তর বাড়িয়ে দিয়েছেন। এর ফলে শত শত বিড়ি ফ্যাক্টরি আজ বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম। পাশাপাশি দুই লাখ বিড়ির তামাক চাষী আজ চরম অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটাছে। এছাড়া ২০০ কোটি টাকার তামাক অবিক্রিত অবস্থায় পড়ে আছে। অন্য দিকে অর্থমন্ত্রী প্রস্তাবিত বাজেটে বহুজাতিক কোম্পানির দামি সিগারেটের ওপর কোনো করারোপ করেনি। মূলত তিনি বৃটিশ আমেরিকান টোব্যাকো কোম্পানির স্বার্থ রক্ষার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।’ 

বিড়ি ওপর প্রস্তাবিত কর বাজেট থেকে তুলে না নিলে আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগ দলীয়ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের সভাপতি মো.হামিদুল হক বলেন, ‘আমাদের রংপুর অঞ্চলে বালিমাটির অঞ্চল। এই মাটিতে তামাক ছাড়া তেমন একটা কিছু চাষ হয় না। তাই রংপুর অঞ্চলের বেশিরভাগ মানুষ কোনো না কোনোভাবে তামাক চাষের সঙ্গে জড়িত। অন্য কোনো ধরনের কর্মসংস্থান সৃষ্টি না করে বিড়ি ওপর শুল্ক আরোপ করে সরকার এই সব মানুষদের জীবিকার ওপর সরাসরি আঘাত হেনেছে। তাই সরকারে কাছে দাবি জানায় দ্রুত এই করারোপ বাতিল না করলে বৃহত্তর রংপুরের মানুষ রাস্তায় নামতে বাধ্য হবে।’

এ সময় সংবাদ সম্মেলনে থেকে সংগঠনটির পক্ষ থেকে দুইটি দাবি উপস্থাপন করা হয়। দাবিগুলো হল: প্রস্তাবিত ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরের বাজেট ঘোষিত বিড়ি শিল্পের ওপর বর্ধিত অযৌক্তিক কর প্রত্যাহার করতে হবে ও চাষীদের অবিক্রিত তামাক ক্রয়ের ব্যবস্থা করতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহ-সভাপতি শফিকুল ইসলাম তুহিন, সদস্য গোলাম ফারুক, আবু কাশেম, ইকবাল হোসেন, বিকাশ চন্দ্র ও নিতায় সরকার।

ব্রেকিংনিউজ/ এএইচ/ এসএ