বৃহঃস্পতিবার ৫ই জানুয়ারী ২০১৭ দুপুর ০১:১৬:০৫

মধ্য জানুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে টেলিসেবা মান যাচাই

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি

মধ্য জানুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে টেলিসেবা মান যাচাই

ঢাকা: কথা বলতে বলতে কল কেটে যাওয়া, থ্রিজি সংযোগেও টুজি গতি, নেটওয়ার্কের লুকোচুরি, বার্তা পাঠানোর পর তা মধ্য পথে ঝুলে থাকা ইত্যকার নানা সমস্যার মুখোমুখি হতে হচ্ছে দেশের টেলিযোগাযোগ সেবা গ্রহীতাদের। প্রমাণ হাজির করতে না পারায় অভিযোগ করেও প্রতিকার পাচ্ছেন না তারা। গ্রাহকদের এমন ভোগান্তি থেকে রক্ষা করতে চলতি মাসের মাঝামাঝি সময়ে টেলিযোগাযোগ সেবার মান পর্যবেক্ষণ শুরু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

এজন্য ইতিমধ্যেই ফিনল্যান্ডের প্রতিষ্ঠান এনাইটের কাছ থেকে বহনযোগ্য যন্ত্র কেনা হয়েছে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্র। সূত্রমতে, সেলফোন ও ওয়াইম্যাক্স অপারেটরদের ভয়েস, ডাটা ও ভিডিও সেবার মান পরিমাপে ব্যবহার হবে এসব যন্ত্র। এরই মধ্যে যন্ত্রগুলো স্থাপনের কাজ শুরু হয়েছে।

মূলত নেটওয়ার্ক বিচ্ছিন্নতা, নিম্নমানের ভয়েস সেবা, এসএমএস আদান-প্রদানের ক্ষেত্রে সময়ক্ষেপণ, কলড্রপ ও অতিরিক্ত বিল আদায়সহ টেলিযোগাযোগ সেবা নিয়ে গ্রাহকদের অভিযোগ খতিয়ে দেখবে বিটিআরসি।

এ বিষয়ে বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ জানিয়েছেন, এ প্রক্রিয়া চালুর জন্য ইতিমধ্যে তাদের যন্ত্রপাতি চলে এসেছে। এখন সেগুলো দিয়ে দেশের বিভিন্ন জায়গায় টেলিকমের বিভিন্ন সেবার মান যাচাইয়ে পরীক্ষা চালানো হবে। প্রাপ্ত ফলাফল দিয়ে মোবাইল অপারেটরগুলোর ঘোষিত সেবার মানের সত্যতা পরীক্ষা করা যাবে।

তিনি বলছেন,  অনেক দিন ধরে গ্রাহকদের কলড্রপের ক্ষেত্রে অপারেটরদের ক্ষতিপূরণ দেয়ার কথা বলেও সেটি করাতে বাধ্য করা যাচ্ছে না। অপারেটরগুলোর বক্তব্য, তাদের কলড্রপের হার আন্তর্জাতিক টেলিযোগাযোগ ইউনিয়নের বেঁধে দেয়া তিন শতাংশের নীচেই আছে। নিজস্ব যন্ত্রপাতির অভাবে বিটিআরসি কখনও সেটি পরিমাপ করে দেখতে পারেনি। বরং অপারেটরগুলো যেসব তথ্য দিয়েছে সেটাই মেনে নিতে হয়েছে। এবার কলড্রপ ছাড়াও ডেটার স্পিড পরিমাপ করাসহ আরও কিছু বিষয়েও বিটিআরসি তথ্য বের করতে পারবে এবং সে অনুসারে ব্যবস্থাও নিতে পারবে।

জানা গেছে, বিটিআরসির নিজস্ব অর্থায়নে এ যন্ত্রাংশ কেনা হয়েছে। এসব যন্ত্র সংগ্রহে ব্যয় হয়েছে ২ লাখ ৯২ হাজার ৫০০ ডলার (২ কোটি ২৮ লাখ ১৫ হাজার টাকা)। উন্মুক্ত দরপত্র পদ্ধতিতে এসব যন্ত্র কিনেছে বিটিআরসি। এতে জামানত হিসেবে দিতে হয়েছে ২৯ হাজার ২৫০ ডলার। সেবার মান পর্যবেক্ষণে নিজস্ব যন্ত্র সংগ্রহে গত বছরের মার্চে দরপত্র বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

কমিশন সূত্রে জানা গেছে, এসব যন্ত্রের মাধ্যমে সেলফোন অপারেটরদের টুজি, থ্রিজি, ফোরজি, এলটিই, সিডিএমএ এবং ওয়াইম্যাক্স সেবার মান পর্যবেক্ষণের সুযোগ থাকার বাধ্যবাধকতা দেয়া হয়। ভয়েস, ডাটা ও ভিডিও সেবার মান এসব যন্ত্রের মাধ্যমে পরিমাপ করা হবে। গ্রাহক সেবার মান নিশ্চিতে শিগগিরই বেশকিছু পদক্ষেপ নেয়া হবে। কিউওএস নির্দেশনা অনুযায়ী অপারেটরদের দেয়া সেবার মান পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে এটি নিশ্চিত করা হবে। এসব যন্ত্র ব্যবহার করে কোনো নির্দিষ্ট গ্রাহকের অভিযোগের ক্ষেত্রেও সুনির্দিষ্ট কারণ নির্ণয় করা সম্ভব হবে। এর ভিত্তিতে সংশ্লিষ্ট অপারেটরকে অভিযোগ সমাধানের জন্য নির্দেশনা দেবে বিটিআরসি।

প্রসঙ্গত, টেলিযোগাযোগ সেবার মান নিশ্চিত করতে ২০১৪ সালের জানুয়ারিতে অন্তর্বর্তী নির্দেশনা জারি করে বিটিআরসি। ভয়েস কল, এসএমএস ও ইন্টারনেট সেবার পাশাপাশি গ্রাহকদের অভিযোগ ব্যবস্থাপনার মানও নিয়মিতভাবে পর্যবেক্ষণের আওতায় আনার লক্ষ্য নিয়ে নির্দেশনা জারি করা হয়। পরবর্তীতে ভয়েস ও ডাটাভিত্তিক সেবার মান পর্যবেক্ষণে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি সংগ্রহের উদ্যোগ নেয় কমিশন। এর অংশ হিসেবে বহনযোগ্য এসব যন্ত্র কেনা হয়েছে।

ব্রেকিংনিউজ/ইহক/এসএ

আপডেট: বৃহঃস্পতিবার ৫ই জানুয়ারী ২০১৭ দুপুর ০১:১৮:১৬