সোমবার ২১শে নভেম্বর ২০১৬ সকাল ১১:৩৩:৪৭

বাউল শিল্পী আবদুর রহমানের ৮০তম জন্মদিন আজ

শিল্প-সাহিত্য ডেস্ক, ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি

বাউল শিল্পী আবদুর রহমানের ৮০তম জন্মদিন আজ

ঢাকা: কিংবদন্তি বাউল সংগীতশিল্পী আবদুর রহমান বয়াতির ৮০তম জন্মদিন আজ। তিনি একাধারে অসংখ্য জনপ্রিয় লোকগানের শিল্পী, অসংখ্য বাউল গানের স্রষ্টা, গীতিকার, সুরকার এবং সংগীত পরিচালক। প্রয়াত বাউলশিল্পী আবদুর রহমান বয়াতি পল্লীগীতি, জারি, মুর্শিদি, ভাওয়াইয়া, দেহতত্ত্ব, লালন, হাছনসহ বিভিন্ন ধরনের গান গাইতেন । শুধু দেশের মাটিতেই নয়, এই প্রখ্যাত শিল্পী বাংলাদেশ ছাড়াও বিশ্বের মোট ৩২টি দেশে গান করেছেন ।

জন্ম এবং শৈশব:

১৯৩৯ সালে ব্রিটিশ ভারতের ঢাকার সূত্রাপুর থানার দয়াগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন আবদুর রহমান বয়াতী । দয়াগঞ্জ বাজারে তার বাবা তোতা মিয়ার একটি হোটেল ছিল । সেখানে মাঝে মধ্যে অনেক গুণী বাউল শিল্পীর আসর বসত । সেখান থেকেই ধীরে ধীরে তার ভেতর গানের প্রতি ভালবাসার সূত্রপাত । এছাড়া ছোটবেলা থেকেই বাউল গানের প্রতি ছিল তার অদম্য আকর্ষণ । যেখানে বাউল গানের আসর বসত সেখানেই ছুটে গিয়ে সামনের সারিতে বসে মনেপ্রাণে গান শুনতেন । প্রখ্যাত বাউল শিল্পী আলাউদ্দিন বয়াতী, মারফত আলী বয়াতী, খালেক দেওয়ান, হালিম বয়াতী, রজ্জব আলী দেওয়ান, আলেক দেওয়ান, দলিল উদ্দিন বয়াতীসহ বহু শিল্পী প্রায়ই আসতেন গানের অনুষ্ঠান করতে । বাবার অনুপস্থিতিতে কোন কোন দিন মনভরে বাংলার বাউল গান শুনতেন এবং নিজেও রপ্ত করে ফেলতেন । আবদুর রহমান বয়াতীর ছেলে মোহাম্মদ আলম ।

বিখ্যাত গান:

এ পর্যন্ত তার প্রায় পাঁচশ একক গানের অ্যালবাম বের হয়েছে। পাশাপাশি তিনটি মিশ্র অ্যালবামে গান গেয়েছেন তিনি । এর মধ্যে জারি গানের অ্যালবামই প্রায় ৩০০ । 'কসাই', 'অসতী' ও 'হৃদয় থেকে হৃদয়' চলচ্চিত্রে গান করার পাশাপাশি অভিনয়ও করেছিলেন তিনি ।

তাঁর উল্লেখযোগ্য গানের মধ্যে রয়েছে ‘মন আমার দেহঘড়ি সন্ধান করি কোন মিস্তরি বানাইয়াছে’, ‘আমি ভুলি ভুলি মনে করি প্রাণে ধৈর্য্য মানে না’, 'আমার মাটির ঘরে ইঁদুর ঢুকেছে', মরণেরই কথা কেন স্মরণ কর না', 'মা আমেনার কোলে ফুটল ফুল', 'ছেড়ে দে নৌকা মাঝি যাবো নদীয়া', 'আমি ভুলি ভুলি মনে করি প্রাণের ধৈর্য মানে না’ প্রভৃতি ।

সম্মাননা এবং পুরস্কার:

লোকসংগীতে অসামাণ্য অবদানের জন্য পেয়েছেন, সিটিসেল চ্যানেল আই অ্যাওয়ার্ড, সোলস অ্যাওওয়ার্ড, টেলিভিশন দর্শক ফোরাম কর্তৃক লাইফ টাইম এ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড, ২০০৬ সালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির গুণীজন সংবর্ধনা, নজরুল একাডেমি সম্মাননা ২০০৪, সমর দাস স্মৃতি সংসদ অ্যাওয়ার্ড, বাংলাদেশ বাউল সমিতি আজীবন সম্মাননা অ্যাওয়ার্ড, মুন্সীগঞ্জ-বিক্রমপুর সমিতি আজীবন সম্মাননা অ্যাওয়ার্ড, ইউএসএ জাগরনী শিল্পীগোষ্ঠী অ্যাওয়ার্ড, স্বরবীথি থিয়েটার বাংলা নববর্ষ ১৪১২ উপলক্ষে সংবর্ধনা ও সম্মাননা, কায়কোবাদ সংসদ আজীবন সম্মাননা, স্পেল বাউন্ড বিশেষ সম্মাননা, বাংলাদেশ বাউল সংগঠনের গুণীজন সম্মাননা পদক, বিক্রমপুর সাংস্কৃতিক গোষ্ঠী পদক, জাতীয় যুব সাংস্কৃতিক সংস্থার সাহিত্যিক মীর মশাররফ হোসেন স্মৃতি স্বর্ণ পদক ও আজীবন সম্মাননা-২০০৫, সিটি কালচারাল সেন্টার কর্তৃক গুণীজন সম্মাননা পদক, বাউল একাডেমি পদক, একতা অ্যাওয়ার্ড, লোকসঙ্গীতে অসামান্য অবদানের জন্য স্বীকৃতি স্বরূপ লোকজ বাউলমেলা পদক ২০০৪ ও ওস্তাদ মোমতাজ আলী খান সঙ্গীত একাডেমি সম্মাননা পদক ২০০৬ ও শ্রেষ্ঠ বাউলশিল্পী অডিও ক্যাসেট পুরস্কার ।

আমেরিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ বুশ সিনিয়র- এর আমন্ত্রণে হোয়াইট হাউসের এক জমকালো অনুষ্ঠানেও গান পরিবেশন করে ব্যাপক প্রশংসা কুড়ান তিনি ।

মৃত্যু:

২০১৩ সালের ১৯ আগস্ট সোমবার সকাল সোয়া ৮টার দিকে রাজধানীর ধানমন্ডির সাতমসজিদ রোডের জাপান-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন । মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর।

ব্রেকিংনিউজ/ এমআর


আপডেট: সোমবার ২১শে নভেম্বর ২০১৬ সকাল ১১:৩৩:৪৭