লাল গ্রহের শিরায় শিরায় বইছে ঠান্ডা পানির স্রোত। রুক্ষ্ণ, পাথুরে প্রতিবেশী গ্রহকে অনেকটা ‘নারকেলে’-র মতো আবিষ্কার করলেন নাসার বিজ্ঞানীরা। মঙ্গলের বাইরের আস্তরণ পুরোপুরি খটখটে। কোথাও শুষ্ক বরফের পাহাড় কোথাও বা মাইলের পর মাইল শুধু ধূলো আর পাথরের আস্তরণ। কোথাও জলের বিন্দুমাত্র অস্তিত্ব নেই। কিন্তু মঙ্গলের সারফেসের নীচে নিঃশব্দে বয়ে চলেছে ‘ওয়াটার আইস’। নাসার পাঠানো মহাকাশযান ‘মার্স রিকনাইস্যান্স অরবিটার’ (এমআরও)-এর শাওলো র‌্যাডার (শারাড) প্রযুক্তি দিয়ে পরীক্ষা করা হয়েছে মঙ্গলের ইউটোপিয়া প্লানিশিয়া কিছুটা অংশ। এই গবেষণা থেকে উঠে এসেছে, নিউ মেক্সিকো-র মতো বিশাল জায়গা জুড়ে রয়েছে প্রায় ২৬০ ফুট থেকে ৫৬০ ফুট পুরু বরফের পাহাড় দক্ষিণ মেরুতে। এই বরফের পাহাড় ধীরে ধীরে গলতে শুরু করেছে। কীভাবে মঙ্গলের জলের ধারা বইছে অন্তরে অন্দরে দেখে নেয়া যাক এক নজরে

প্রকাশিত : রবিবার ২৭শে নভেম্বর ২০১৬ রাত ০৮:২০:৪২