ঘোলাটে, প্রাণহীন, নিশ্চল দু’টো চোখ। তীক্ষ্ণ ফলার মতো সামনের দিকে ঠিকরে এসেছে নাকটা। চোয়ালের আকার আর মাথাটাকে ঘিরে থাকা ছোপগুলো যেন কোনও সুদূর প্রাগৈতিহাসিক সময়ের চিহ্ন বহন করছে। ‘ভূতুড়ে হাঙর’। আরও একটা নাম রয়েছে তার— শিমেরা। গ্রিক পূরাণে এই নাম প্রথম খুঁজে পাওয়া গিয়েছিল। সমুদ্র বিশেষজ্ঞ বা সমুদ্রজীবীদের কাছে ভূতুড়ে হাঙর কিন্তু পরিচিত নাম। কিন্তু শুধু নামটাই পরিচিত, অস্তিত্বটা কারও কাছেই তেমন স্পষ্ট ছিল না। ভূতুড়ে হাঙরের সঙ্গে আলাপ হোক, নাবিকরা এমনটা চানও না সচরাচর। কেন চান না, নামটা শুনলেই সেটা বেশ খানিকটা স্পষ্ট হয়ে যায়।

প্রকাশিত : রবিবার ১৮ই ডিসেম্বর ২০১৬ রাত ০৯:০৬:৫৮