‘বিএনপিও তাদের সম্মেলনের জন্য সোহরাওয়ার্দী উদ্যানকে ব্যবহার করতে চেয়েছিলো। কিন্তু তারা (আওয়ামী লীগ) ক্ষমতাবলে সেখানে সম্মেলন করতে দেয়নি। অথচ আজ নিজেদের সম্মেলনের অন্তত ১৫ দিন আগ থেকেই প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। তাই একটি কথা স্পষ্ট করে বলে দিচ্ছি, সারা ঢাকা সিটিতে আওয়ামী লীগ বিদ্যুতের ঝলমল বাতি লাগিয়েও জনগণের মধ্যে প্রজ্জ্বলিত ক্ষোভের আগুন নেভাতে পারবে না।’ আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, ‘বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল হিসেবে চায় আওয়ামী লীগের সম্মেলন সফল হউক। প্রতিহিংসাপরায়ণ না হয়ে জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটুক।’ আওয়ামী লীগ এখন আর ১৪ দল নয়, এক নেতা শেখ হাসিনাতে রুপান্তরিত হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

প্রকাশিত : বুধবার ১৯শে অক্টোবর ২০১৬ দুপুর ০২:০২:০৭

বিএনপির রাজনীতিতে ‘অদৃশ্যক্ষমতাধর’ এই শিমুল বিশ্বাস। সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে দিনে দিনে ততটাই প্রভাবশালী হয়ে উঠছেন। তৃণমূল থেকে শুরু করে বিএনপির নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের নেতারাও বর্তমানে এক প্রকার অসহায় ও জিম্মি হয়ে পড়েছে। অথচ দলমত নির্বিশেষে শিমুল বিশ্বাসের বিরুদ্ধে শত অভিযোগ দেওয়ার পরও খালেদা জিয়ার কাছে যেমনটা ছিলেন তেমনটাই আছেন। বর্তমানে বিএনপির এমন কোনো পর্যায় নেই, যেখানে ব্যক্তি শিমুল বিশ্বাসের প্রভাব নেই। স্বাভাবিকভাবেই দলটির নেতাকর্মীদের মনে প্রশ্ন উঁকি দিচ্ছে তাহলে কী বিএনপি (শিমুল) বিশ্বাসের অদৃশ্যশক্তির জালে আটকে পড়েছে। না কী অন্যে কিছু, এর রহস্য থেকেই যায়।

প্রকাশিত : বুধবার ১৯শে অক্টোবর ২০১৬ সকাল ০৮:৪২:১৫

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘জঙ্গিবাদ নির্মূলে ১৪ দলের পক্ষ থেকে আমরা দেশব্যাপী সমাবেশ করেছি। জঙ্গি উত্থান বন্ধ করার জন্য গ্রামে গিয়েছি। গ্রামের ইমাম থেকে শুরু শিক্ষক সাহিত্যিক, বুদ্ধিজীবী, লেখক, মুক্তিযোদ্ধা, শ্রমিক, নারী-পুরুষ, শিশু সবাই মিলে মানববন্ধন করে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছে। এই যে সামাজিক আন্দোলন হলো এতে জঙ্গিরা বাংলাদেশে আপাতত ভাবে পরাজিত হয়েছে।’ জঙ্গিবাদ নিয়ে বর্তমানে যে কাজটি হচ্ছে সেটার একটি বড় অংশ হচ্ছে খালেদা জিয়ার সমর্থন বলেও মন্তব্য করেন তিনি। ‘আর তার বিরুদ্ধে লাগাতারভাবে সমালোচনা করে যাচ্ছেন হাসানুল হক ইনু। এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নেই। আমি ওরকম ভাবে বলতে পারি না। উনি যেরকম ভাবে বলেন ভাই, আমি সে ভাবে বলতে পারি না। উনি বলা শুরু করেন খালেদা জিয়াকে দিয়ে, শেষও করেন খালেদা জিয়াকে দিয়েই। এজন্য তাকে ধন্যবাদ।’

প্রকাশিত : মঙ্গলবার ১৮ই অক্টোবর ২০১৬ বিকাল ০৪:৫২:৫৯

‘খালেদা জিয়া ক্ষমতায় থাকার সময় যে দুর্নীতি করেছে, এতিমদের টাকা আত্মসাৎ করেছে, আরও যা অপরাধ করেছে সেই অপরাধের জন্য আজকে তিনি বিচারের কাঠগড়ায়। সেই সাথে সরকার উৎখাতের নামে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে মানুষ হত্যার দায়ে খালেদাকে বিচারের কাঠগড়ায় আগামীদিনেও দাঁড়াতে হবে।’ “এই পাপের (দুর্নীতি-মানুষ হত্যা) জন্য খালেদা জিয়াকে আদালতের শাস্তি ভোগ করতে হবে। সেজন্য তিনি নির্বাচনের যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন না। তাই তাকে (খালেদা) বাকী জীবনটা সংসদের বাইরেই কাটাতে হবে”- বলেন হানিফ। শেখ রাসেলের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে তিনি বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধে বিরোধী শক্তিরাই ১৯৭৫ সালে সুযোগ বুঝে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারকে হত্যা করেছে। এই হত্যা কোনো ব্যক্তিকে নয়, বাংলাদেশর স্বাধীনতাকে বাঙ্গালির চেতনাকে হত্যা। শেখ রাসেলের মত শিশুকে হত্যার নজীর বিশ্বের ইতিহাসে নেই। বঙ্গবন্ধুর আদর্শে দেশের উন্নয়ন করলে শেখ রাসেলসহ বঙ্গবন্ধুর পরিবারের আত্মা শান্তি পাবে।’

প্রকাশিত : মঙ্গলবার ১৮ই অক্টোবর ২০১৬ বিকাল ০৩:১৭:২৮

বর্তমান সরকারের ‘দুর্নীতি’র প্রমাণ দিতে না পারলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এবং সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। মঙ্গলবার (১৮ অক্টোবর) দুপুরে রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের জম্মদিন উপলক্ষে যুবলীগের এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। কাদের বলেন, ‘বর্তমান সরকারের উন্নয়ন বিশ্বব্যাপী সমাদৃত। তারপরও বিএনপি নেতারা বর্তমান সরকারের মন্ত্রীদের দুর্নীতিবাজ বলেছেন। বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্টের কাছেও মন্ত্রী-এমপিদের দুর্নীতিবাজ বলেছেন। আমরা রাত-দিন পরিশ্রম করে দেশের মানুষের প্রশংসা শুনি, আর উনারা আমাদের দুর্নীতিবাজ বলেন।’ ‘দুর্নীতির প্রমাণ দিতে না পারলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। দেশের সম্মান হানিকর কোনো কিছুই মেনে নেয়া হবে না।’ যাদের শরীরে দুর্নীতির দুর্গন্ধ তাদের মুখে এসব কথা মানান না বলেও মন্তব্য করেন তিনি। ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিদেশি দেখলেই বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া তাদের কাছে দেশের ব্যাপারে নালিশ করেন। তবে এসব করে লাভ হবে না।’

প্রকাশিত : মঙ্গলবার ১৮ই অক্টোবর ২০১৬ বিকাল ০৩:১৬:১২

সম্মেলনে ১৪ দলের শীর্ষ নেতাদের ছাড়াও আমন্ত্রণ জানানো হবে সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টি, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি), বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ)সহ নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত প্রায় সব রাজনৈতিক দলকে। এ ছাড়া দেশের বাইরে প্রায় ১৫টি দেশের একাধিক রাজনৈতিক দলের প্রধানকে সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এ ব্যাপারে অভ্যর্থনা উপ-কমিটির আহ্বায়ক মোহাম্মদ নাসিম জানিয়েছেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী দেশের সব রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতাদের আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানো হবে আজ (মঙ্গলবার)। জামায়াতকে আমন্ত্রণ জানানোর প্রশ্নই আসেনা। কারণ, তারা বাংলাদেশের অস্তিত্বে বিশ্বাস করে না।

প্রকাশিত : মঙ্গলবার ১৮ই অক্টোবর ২০১৬ দুপুর ০২:১১:৫৭

যেকোনো ভাবে বাংলাদেশ কৌশলগত ‘ভয়ঙ্কর’ অবস্থানে রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক এমাজ উদ্দিন আহমেদ। তিনি বলেছেন, ‘যদি নিজের স্বার্থ সংরক্ষণ করে কৌশলগত অবস্থান অব্যাহত রাখতে হয় তাহলে প্রতিটি ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞ তৈরি করতে হবে।’ সোমবার (১৭ অক্টোবর) সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বিএমএ’র সাবেক সভাপতি এবং ড্যাব’র সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ডা. এম এ হাদীর ৯ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব) এ আলোচনা সভার আয়োজন করে। এমাজ উদ্দিন বলেন, ‘ক্ষমতাধর রাষ্ট্র চীন, ভারত এমনকি আমেরিকাকে কোনো সুযোগ করে দিয়ে পা ফেলতে দেয়া যাবে না। লক্ষ্য রাখতে হবে বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের মাথা যেন নিচু না হয়।’ সতর্ক বাক্যে তিনি বলেন, ‘একটি কথা ভুলে গেলে চলবে না যে, ভারত ও পাকিস্তান যেভাবে স্বাধীন রাষ্ট্র হয়েছে আমরা (বাংলাদেশ) সেভাবে স্বাধীন হয়নি। বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধে ত্যাগ স্বীকার করে স্বাধীন হয়েছে। তাই হারিয়ে যাওয়ার সম্ভবনা বেশি।’ এমাজউদ্দিন বলেন, আজকে আমাদের পাশে একদিকে ভারত অন্যদিকে চীন। তাই কোথাও কোনো ভয়ঙ্কর সমূহ ক্ষতি হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়। কোনোক্রমে ব্যর্থ হলে বিশ্বপরিমণ্ডল থেকে বঞ্চিত হয়ে যেতে পারি।’

প্রকাশিত : সোমবার ১৭ই অক্টোবর ২০১৬ সন্ধ্যা ০৭:৩২:৩১

আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলনকে কেন্দ্র করে কোনো ধরনের চাঁদাবাজি করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য ওবায়দুল কাদের। সোমবার (১৭ অক্টোবর) রাজধানীর ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। কাদের বলেন, ‘সম্মেলনকে কেন্দ্র করে কোথাও কোনো ধরনের চাঁদাবাজির খবর আসা মাত্রই আমরা ব্যবস্থাগ্রহণ করব। চাঁদাবাজির সঙ্গে কেউ জড়িত থাকলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ সম্মেলনের বাজেট নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এবারের সম্মেলনে আমাদের বাজেট ২ কোটি ৬৫ লাখ টাকা। সম্মেলনের খরচ কোনোভাবেই এই বাজেট অতিক্রম করবে না।’

প্রকাশিত : সোমবার ১৭ই অক্টোবর ২০১৬ সন্ধ্যা ০৭:০৮:১৬

আওয়ামী লীগের ২০তম ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে বিএনপিকে দাওয়াত দেওয়া হয়েছে বলা হলেও বিএনপির পক্ষ থেকে দাবি করা হয় তারা এখন পর্যন্ত আওয়ামী লীগের কাছ থেকে কোনো দাওয়াত পায়নি। এদিকে বিএনপিকে তাদের ‘ষড়যন্ত্র’ সম্পর্কে জানাতে আওয়ামী লীগের সম্মেলনে তাদেরকে দাওয়াত দেওয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন দলের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। রবিবার (১৬ অক্টোবর) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের প্রস্তুতি কাজ পরিদর্শন শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে এমন মন্তব্য করেন নাসিম। তিনি বলেন, ‘সম্মেলনে বিএনপিকেও দাওয়াত দিয়েছি। আমরা চাই বিএনপি আসুক। বিএনপি এসে নিজে চোখে দেখুক এবং তাদের ষড়যন্ত্র সম্পর্কে জানুক।’

প্রকাশিত : রবিবার ১৬ই অক্টোবর ২০১৬ বিকাল ০৫:৫০:৪০

বিএনপিকে তাদের ‘ষড়যন্ত্র’ সম্পর্কে জানাতে আওয়ামী লীগের সম্মেলনে তাদেরকে দাওয়াত দেওয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন দলের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। রোববার (১৬ অক্টোবর) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের প্রস্তুতির কাজ পরিদর্শন শেষে এক বৈঠকে এ মন্তব্য করেন তিনি। নাসিম বলেন, ‘সম্মেলনে বিএনপিকেও দাওয়াত দিয়েছি। আমরা চাই বিএনপি আসুক। বিএনপি এসে নিজে চোখে দেখুক এবং তাদের ষড়যন্ত্র সম্পর্কে জানুক।’ তিনি বলেন, ‘যে ১৪টি দেশকে সম্মেলনে দাওয়াত দেওয়া হয়েছিল তাদের অধিকাংশই আসবে বলে জানিয়েছে। যারা পদ্মা সেতু নির্মাণে বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়েছিল, ঋণ দেওয়া বন্ধ করেছিল তারাও আসবে দেখার জন্য; কিভাবে আমরা দেশকে উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি।’

প্রকাশিত : রবিবার ১৬ই অক্টোবর ২০১৬ বিকাল ০৪:১৬:৫০