সাংবাদিকদের মর্যাদা পেশাগত মানোন্নয়নসহ অধিকার রক্ষার সেইফগার্ড হিসেবে বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলকে আরো যুগোপযোগী ও শক্তিশালী করার ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। রাজধানীর তোপখানা রোডস্থ বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল অডিটোরিয়ামে 'সাংবাদিকতার নীতিমালা, আচরণবিধি ও সংবাদপত্র সংশ্লিষ্ট আইনসমূহ' শীর্ষক এক কর্মশালায় বক্তারা মঙ্গলবার এ গুরুত্বারোপ করেন। কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান আপিল বিভাগের বিচারপতি (অব.) মো. মমতাজ উদ্দিন আহমেদ। তিনি বলেন, 'সাংবাদিকদের মর্যাদা প্রতিষ্ঠা, পেশাগত মানোন্নয়ন এবং দেশে কর্মরত সাংবাদিকদের ডাটাবেজ ও আইডেনটিটি নিরূপণে প্রেস কাউন্সিলকে অন্যান্য পেশাজীবী প্রতিষ্ঠানের মতো শক্তিশালী করতে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।' প্রেস কাউন্সিলের বিদ্যমান আইনকে আরো যুগোপযোগী করতে সংশ্লিষ্টদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি। আইন, আদালত, মানবাধিকার সংক্রান্ত সাংবাদিকদের সংগঠন 'ল' রিপোর্টার্স ফোরাম (এলআরএফ) সদসদ্যের জন্য প্রেস কাউন্সিল কর্তৃপক্ষ এ কর্মশালার আয়োজন করেন।

প্রকাশিত : মঙ্গলবার ১৮ই অক্টোবর ২০১৬ রাত ০৮:৩৫:২২

দেশের গণতন্ত্র নির্ভর করে মানুষ কতটা স্বাধীনভাবে তথ্য পাচ্ছে বা দিতে পারছে তার উপর। প্রত্যেক সাংবাদিকের তথ্য পাওয়ার ও স্বাধীনভাবে তা প্রচার করার অধিকার রয়েছে। সাংবাদিকদের সে অধিকার বাস্তবায়নে সরকার কাজ করে যাচ্ছে।’ এই সাংবাদিক নেতা বলেন, ‘দেশের প্রচলিত সকল আইনই হচ্ছে জণগণকে সচেতন ও সুশৃঙ্খল করার লক্ষ্যে। কিন্তু তথ্য অধিকার আইন এমন একটি আইন যা সরকারকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। তথ্য অধিকার আইনের অন্যতম লক্ষ্য হচ্ছে সরকারি ও বেসরকারি সংস্থাগুলোর জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা। যদি এটি নিশ্চিত করা যায় তাহলে সরকারের বিভিন্ন কার্যক্রমে, প্রশাসনিক ক্ষেত্রে দুর্নীতি অনেক কমে যাবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘তথ্য পাওয়ার অধিকার যেমন সবার আছে তেমনি সেটি পেয়েই প্রচার করার অধিকার কারও নেই। প্রচার করার আগে অবশ্যই এর সত্যতা যাচাই-বাছাই করতে হবে। বিকৃত সংবাদ প্রচার করার কোনো অধিকার এ আইনে নেই।

প্রকাশিত : সোমবার ১৭ই অক্টোবর ২০১৬ বিকাল ০৪:৪৪:২৭

সংবাদপত্রে কর্মরত গণমাধ্যমকর্মীদের জন্য অবিলম্বে নবম ওয়েজ বোর্ড রোয়েদাদ ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা। একই সঙ্গে ইলেকট্রনিক গণমাধ্যমে কর্মরত সাংবাদিক-কর্মীদের জন্যও আলাদা বেতনকাঠামো ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন তারা। শুক্রবার বগুড়ার একটি মোটেলে অনুষ্ঠিত বিএফইউজের নির্বাহী পরিষদের সভায় সাংবাদিক নেতারা এই দাবি তুলে ধরেন। সভায় সভাপতিত্ব করে বিএফইউজের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি শহীদ উল আলম। নবম ওয়েজ বোর্ড ঘোষণার দাবিতে সবাইকে এক হওয়ার আহ্বান জানান তিনি। সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য নতুন বেতনকাঠামো কার্যকরের পর দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে গণমাধ্যমকর্মীদের জন্য জীবন দুঃসহ হয়ে ওঠায় সাংবাদিকদের জন্য নতুন বেতনকাঠামোর দাবি জানান সাংবাদিক নেতারা।

প্রকাশিত : সোমবার ১০ই অক্টোবর ২০১৬ দুপুর ০১:০৮:৫৩

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মৎস্য প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্পে নিয়োজিত শ্রমদাসদের নিয়ে ধারাবাহিক অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের জন্য মার্কিন বার্তা সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস (এপি) এ বছরের পুলিৎজার পুরস্কার পেয়েছে। এ ছাড়া মার্কিন সংবাদপত্র ওয়াশিংটন পোস্ট পুলিশের গুলিতে নিহত ব্যক্তিদের তথ্যভান্ডার তৈরির জন্য পুরস্কৃত হয়েছে। সোমবার শততম পুলিৎজার পুরস্কার তুলে দেওয়া হয় বিজয়ীদের হাতে। এবারের পুরস্কার পাওয়ার মধ্য দিয়ে এপি ৫২ বারের মতো যুক্তরাষ্ট্রের সাংবাদিকতার মর্যাদাকর পুরস্কারটি পেল। ‘সিফুড ফ্রম স্লেভস’ নামের ধারাবাহিক প্রতিবেদনে যুক্তরাষ্ট্রে রপ্তানি হওয়া সামুদ্রিক মাছের প্রক্রিয়াজাত শিল্পে শ্রমদাসদের ভয়াবহ জীবন তুলে ধরা হয়। এ প্রতিবেদন প্রকাশের পর দুই হাজারের বেশি শ্রমিক বন্দিদশা থেকে মুক্তি পান।

প্রকাশিত : সোমবার ১০ই অক্টোবর ২০১৬ দুপুর ০১:০৫:২০

প্রেস ফ্রিডম ইনডেক্স অনুযায়ী কোন দেশের গণমাধ্যম কতটা স্বাধীন৷ ইরিত্রিয়া: রিপোটার্স উইদাউট বর্ডার্সের প্রকাশিত ২০১৬ প্রেস ফ্রিডম ইনডেক্স অনুযায়ী, যে দেশটিতে গণমাধ্যমের কোনোই স্বাধীনতা নেই, সেটি হচ্ছে ইরিত্রিয়া৷ গত ২০ বছরের বেশি সময় ধরে স্বৈরশাসকের কবলে থাকে দেশটির কমপক্ষে ১৫ সাংবাদিক এই মুহূর্তে জেলে আছেন৷ প্রেস ফ্রিডম ইনডেক্সে ১৮০টি দেশের মধ্যে সবার নীচে আছে ইরিত্রিয়া উত্তর কোরিয়া: ইরিত্রিয়ার পরই নীচের দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে উত্তর কোরিয়া৷ কিম জুন-উনের নেতৃত্বাধীন দেশটি গত ১৫ বছর ধরেই প্রেস ফ্রিডম ইনডেক্সের একেবারে নীচের দিকে অবস্থান করছে৷ দেশটিতে বিদেশি সাংবাদিকদের ভিসা তেমন দেয়া হয় না, যদিও বা কেউ ভিসা পান, তাকে রাখা হয় কড়া নজরদারিতে৷

প্রকাশিত : সোমবার ১০ই অক্টোবর ২০১৬ দুপুর ০১:০১:৪৮

ইউরোপ যেখানে সবচেয়ে মুক্ত গণমাধ্যম অঞ্চল, সেখানে পোল্যান্ড ও হাঙ্গেরির মতো দেশগুলোতে সরকারকে গণমাধ্যমের স্বাধীনতার উপর বিভিন্ন বাধানিষেধ আরোপ করতে দেখা গেছে। মধ্যপ্রাচ্য এবং আফ্রিকায় সাংবাদিকরা সন্ত্রাসবাদ, সশস্ত্র-সংঘাত এবং কতৃপক্ষের হুমকির শিকার হচ্ছেন। লাতিন আমেরিকায় সাংবাদিকরা অপরাধ, সহিংসতা এবং দুর্নীতির দ্বারা বাধাগ্রস্থ হচ্ছেন। যুক্তরাষ্ট্রে তারা সম্মূখিন হচ্ছেন সাইবার নজরদারির। পূর্ব এশিয়ায় গণতান্ত্রিক দেশ জাপান এবং দক্ষিণ কোরিয়ায়ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। চীনে কমিউনিস্ট পার্টি গণমাধ্যমের উপর তাদের দমননীতি অব্যাহত রেখেছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়।

প্রকাশিত : সোমবার ১০ই অক্টোবর ২০১৬ দুপুর ১২:৫৮:৩৫

মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকে সম্প্রচার আইন এবং অনলাইন নীতিমালার খসড়া শিগগিরই উপস্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। ইতোমধ্যে এ সংক্রান্ত গঠিত কমিটি খসড়াটি চূড়ান্ত করে মন্ত্রণালয়ে জমা দিয়েছে বলেও জানান তিনি। মঙ্গলবার (২৩ আগস্ট) সচিবালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা জানান। ইনু বলেন, দ্রুতই সম্প্রচার কমিশন আইনের খসড়া মন্ত্রিসভায় উপস্থাপনের জন্য পাঠানো হবে। মন্ত্রণালয় খসড়াটি যাচাই বাছাই করছে। এ সময় তথ্যমন্ত্রী জঙ্গি দমনে সঠিক তথ্যপ্রবাহ নিশ্চিত করতে গণমাধ্যমের প্রতি অনুরোধ জানান।

প্রকাশিত : শনিবার ৮ই অক্টোবর ২০১৬ দুপুর ০১:৪৩:৪৩